Sharing is caring!

স্টাফ রিপোর্টার \ চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার শিংনগর সীমান্তে বিএসএফ এর নির্যাতনের শিকার ১ বাংলাদেশীর মৃত্যু হয়েছে। মৃত্যুবরণকারী হচ্ছে, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার মনাকষা ইউনিয়নের তারাপুর পন্ডিতপাড়া গ্রামের আজিজুল হকের ছেলে আব্দুল শরীফ (৪৫)। শনিবার গভীর রাতে শরিফ মারা যায় বলে স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে। তবে ঘটনার বিষয়ে জানার জন্য ৯ বিজিবি’র কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে মোবাইল ফোর বন্ধ পাওয়া যায়। শনিবার ভোরে চোরাইপথে ভারত থেকে গরু আনার সময় ভারতের বিএসএফের পিটুনিতে মারাত্মক আহত হয়ে প্রাণ নিয়ে পালিয়ে আসে। শনিবার ভোর ৫টার দিকে শিংনগর বিওপির অধীনস্ত ১৭১নং পিলার এলাকায় এঘটনা ঘটে। সে ১৪ঘন্টা মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে শনিবার রাতে রাজশাহী মেডিকাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় বলে মৃতের পারিবারিক ও স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে। মনাকষা ইউপির ৯নং ওয়ার্ডের সাবেক সদস্য সিরাজুল ইসলাম বলেন, শনিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে শরীফ রাজশাহী মেডিকাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেলে গোপনে লাশ নিয়ে আসার চেষ্টাকালে প্রশাসন জানতে পারায় সেখানেই লাশ ময়নাতদন্ত শেষে রবিবার দুপুরে শরীফের পরিবারের নিকট লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে। রোববার বিকেল ৫টায় শরিফের লাশ দাফনের জন্য স্থানীয় মসজিদে ঘোষণা করা হয় এবং দাফন কাজ সম্পন্ন হয়েছে। উল্লেখ্য, শনিবার ভোর ৫টার দিকে সিংনগর বিওপির অধীনস্ত ১৭১নং পিলার  এলাকা দিয়ে চোরইপথে গরু নিয়ে আসার সময় ভারতের দৌলতপুর ক্যাম্পের বিএসএফ সদস্যরা টের পেলে তারাপুর পন্ডিত পাড়া গ্রামের আইনুল হকের ছেলে ওহিদুর রহমান(৪৫)কে রাবার বুলেট নিক্ষেপ করলে সে আহত অবস্থায় পালিয়ে আসে। একই কারনে সিংনগর পন্ডিতপাড়া গ্রামের আমজাদের ছেলে শরিফ (৪০) ভারতের একই ক্যাাম্পের বিএসএফের সদস্য বেধড়ক পিটুনী দিলে সে গুরুতর আহত হয়ে পালিয়ে আসে এবং পরবর্তীতে পরিচয় গোপন করে শরীফ রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি হয়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার রাতে শরীফ মারা যায় এবং ওহিদুর রহমান এখনো গোপনে এখনও চিকিৎসাধীন রয়েছে। এঘটনার বিষয়ে রবিবার বিকেলে শিবগঞ্জ থানার ওসি হাবিবুল ইসলাম হাবিব বলেন, এ ধরণের কোন ঘটনা তাদের জানা নেই। এব্যাপারে চাঁপাইনবাবগঞ্জস্থ ৯ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্ণেল এস.এম আবুল এহশান জানান,  শিংনগর সীমান্তে কোন গোলাগুলি বা নির্যাতনের কোন ঘটনা ঘটেনি। বিষয়টি নিয়ে বিজিবির পক্ষ থেকে এলাকায় বিস্তারিত খোঁজ-খবর নেয়া হয়েছে। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মনাকষা ইউনিয়নের তারাপুর পন্ডিতপাড়া গ্রামের আজিজুল হকের ছেলে আব্দুল শরীফ (৪৫) মারা গেছে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে। মারা যাওয়া শরীরে কোন আঘাতের চিহ্ন নেয়। স্থানীয় লোকজন অনেক সময় ভুল তথ্য দিয়ে বিভ্রান্তির সৃৃষ্টি করে। সীমান্ত দিয়ে কোন বাংলাদেশী যেনো অবৈধভাবে প্রবেশ করতে না পারে, সেজন্য বিজিবির সদস্যরা সব সময় কড়া নজরদারি রাখছে। ভবিষ্যতে যেনো অবৈধভাবে কেউ প্রবেশ করতে না পারে সেজন্য বিজিবির সদস্যরা সচেষ্ট থাকবে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *