Sharing is caring!

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার সীমান্তে হত্যা ও বিভিন্ন সীমান্ত এলাকায় বিএসএফের নির্যাতন বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জোর দাবি জানিয়েছেন জেলার সচেতন মহল। সীমান্ত এলাকা দিয়ে অবৈধভাবে কোন দেশে প্রবেশ অবশ্যই অপরাধ। আবার কোন মানুষের উপর নির্যাতন করাটাও অন্যায়। অবৈধভাবে কোন দেশে কেউ প্রবশে করলে, সেই অপরাধের জন্য নিজ নিজ দেশের প্রচলিত আইনে অবৈধ প্রবেশকারীর বিচার হবে। একজন মানুষকে পিটিয়ে বা গুলি করে হত্যা বা নির্যাতন করা কোনোভাবেই কাম্য নয়। একজন মানুষকে শারিরীকভাবে অমানুষিক নির্যাতন করা কোন সভ্য সমাজের কাজ নয়। অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশ না করার জন্য বিজিবি’র পক্ষ থেকে সচেতনতা ও সতর্কতা অবলম্বন করা হচ্ছে। কিন্তু বাংলাদেশী গরুর রাখালরা প্রায়শই অবৈধভাবে ভারতে যাচ্ছে এবং গরু নিয়ে আসার সময়ই এসব ঘটনা ঘটছে। সামান্য মজুরীর জন্য অবৈধভাবে গিয়ে নির্যাতনের শিকার হচ্ছে গরু রাখালরা। কিছু অর্থের জন্য গুলি বা নির্যাতনে অনেকেই পঙ্গু হচ্ছে, অনেকেই প্রাণও হারাচ্ছে। ধরাছোঁয়ার বাইরে থেকে যাচ্ছে আসল গরু ব্যবসায়ীরা। রাখালদের অবৈধভাবে ভারতে যাওয়া বন্ধ করতে হলে, প্রথমে এই অবৈধ গরু নিয়ে আসার সাথে জড়িত গরু ব্যবসায়ীদের নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। তাহলে হয়তো এই অবৈধ প্রবেশ বন্ধ হতে পারে। এছাড়া অবৈধভাবে যেন কোন বাংলাদেশী ভারতে প্রবেশ করতে না পারে সেদিকে অবশ্যই সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে। প্রায়শই দু’দেশের আলোচনার টেবিলে সীমান্ত হত্যা বা নির্যাতন বন্ধের বিষয়ে ঐক্যমতের সিদ্ধান্তের কথা বলা হয়। কিন্তু বাস্তব চিত্র উল্টো। এ নিয়ে জনমনে নানা প্রশ্ন দেখা দিচ্ছে। তাই অবৈধ প্রবেশ বন্ধ করে সীমান্তে বাংলাদেশীদের নির্যাতন বা গুলির ঘটনা নিয়ন্ত্রণে এগিয়ে আসবেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এমনটায় আশা করছেন অভিজ্ঞ মহল। উল্লেখ্য, গত রবিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে জেলার গোমস্তাপুর উপজেলার রোকনপুর সীমান্তে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনী বিএসএফ এর গুলিতে এক বাংলাদেশী যুবক নিহত হয়েছে। নিহত যুবক গোমস্তাপুর উপজেলার রোকনপুর গ্রামের মোঃ সিরাজুল ইসলামের ছেলে মোঃ শাহালাল (২০)। রবিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে গরু আনতে যাওয়ার সময় এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ নিহত শাহালালের লাশ উদ্ধার করে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *