Sharing is caring!

গোদাগাড়ী  প্রতিনিধি \ টাকা দাও, বই লও এমন শর্তের কথা বলে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে টাকা আদায়ের অভিযোগে লিখিত অভিযোগ করেছে অভিভাবকরা। রবিবার রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার হুজুরাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের নিকট থেকে বিনা মূল্যের সরকারী বই এর জন্য টাকা নেওয়ার অভিযোগে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা। লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গোদাগাড়ী উপজেলার হুজুরাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মতিউর রহমান ১লা জানুয়ারী থেকে শিক্ষার্থীদের হাতে বিনা মূল্যে বই দেওয়ার সরকারী নির্দেশ উপেক্ষা করে ২’শ ৫০ টাকা থেকে ৫’শ টাকা করে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে বই এর জন্য টাকা আদায় করছে। যে সকল শিক্ষার্থী টাকা দিচ্ছে না, তাদের বই দেওয়া হচ্ছে না। লিখিত অভিযোগে আরও জানা য়ায়, প্রধান শিক্ষক মতিউর রহমান বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আঃ রাজ্জাক যোগসাজসে বিনা রশিদে বই এর জন্য টাকা আদায় করছে শিক্ষার্থীদের নিকট থেকে। অবিভাবকরা বিদ্যালয়ে গিয়ে বইয়ের জন্য কেন টাকা নেওয়া হচ্ছে জানতে চাইলে বিদ্যালয়ের ধর্মীও শিক্ষক মোঃ আঃ কালাম আজাদ অভিভাবকদের ধমক ও গালিগালাজ দিয়েছেন বলেও লিখিত অভিযোগে উল্লেখ রয়েছে। এছাড়াও অভিভাবক জিয়াউর রহমান বলেন, টাকা না দিলে ছাত্র/ছাত্রী হাজিরা খাতায় শিক্ষার্থীদের নাম উঠা হয় না। বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আঃ রাজ্জাক টাকা আদায়ের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, বই এর জন্য টাকা নেওয়া হচ্ছে না। শেসান চার্জ বাবদ রশিদের মাধ্যমে ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে ১’শ ৫০ টাকা, ৭ম শ্রেণীতে ২’শ, ৮ম শ্রেণীতে ২’শ ৫০ ও ৯ম শ্রেণীতে ৩’শ টাকা করে নেওয়া হচ্ছে। ধর্মীয় শিক্ষক অভিবাবকদের গালিগালাজের বিষয়টি ¯^ীকার করে তিনি বলেন, বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটেনি। বিদ্যালয় থেকে ১ কিলোমিটার দুরে হাবিবুর রহমানের দোকানে এঘটনা ঘটে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মতিউর রহমান বলেন, সরকারী বই এর জন্য কোন টাকা নেওয়া হয়নি শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে। শেসান চার্জ বাবদ শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে টাকা নেওয়া হচ্ছে। ধর্মীয় শিক্ষকের সাথে অভিবাবকদের গালিগালাজের বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন ধর্মীয় শিক্ষককের সাথে অভিভাবকের কোন ঘটনা ঘটেনি। গোদাগাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার খালিদ হোসেন বলেন, লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত স্বাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *