Sharing is caring!

ট্যানারির বর্জ্য হবে বিদ্যুতের উৎস

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী (এলজিআরডি) মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা আধুনিকায়নের মাধ্যমে ভূমির ওপর চাপ কমাতে হবে। পরিবেশবান্ধব ও মানসম্মত উপায়ে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা করতে হবে। এর অংশ হিসেবে সাভার ট্যানারির বর্জ্য পুড়িয়ে বিদ্যুৎ হবে।

রোববার (২৩জুন) সচিবালয়ে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ‘আমিনবাজার ল্যান্ডফিল সম্প্রসারণ ও আধুনিকীকরণ’ প্রকল্পের পর্যালোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের বর্জ্য ব্যবস্থাপনার স্থায়ী সমাধানের লক্ষ্যে প্রায় ৮২৭ কোটি টাকা ব্যয়ে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করবে সরকার। সম্পূর্ণ সরকারি অর্থায়নে তিন বছরে এ প্রকল্প বাস্তবায়িত হবে। প্রকল্পের আওতায় ৬৮২০০ বর্গমিটার জমিতে দৈনিক ৫০০ মেট্রিক টন ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন তিনটি প্লান্ট বরাদ্দ রাখা হয়েছে, যার মাধ্যমে বর্জ্য পুড়িয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হবে। এ ছাড়া ১৩৬০০ বর্গমিটার জমিতে মেডিকেল বর্জ্য ও ১৬০০০ বর্গমিটার জমিতে বর্জ্য রিসাইকেল ফ্যাসিলিটিজ স্থাপনের জন্য বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

শুধু ইনসিনারেশন চালু হলে এক বছরের ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন ল্যান্ডফিলের লাইফ তিন গুণ বাড়ানো যাবে। আমিনবাজার ল্যান্ডফিলের যে ধারণক্ষমতা, সেখানে আর দুই বছর পর্যন্ত বর্জ্য ফেলা সম্ভব। এ কারণে নতুন ল্যান্ডফিল নির্মাণ, ইনসিনারেশন প্লান্ট বসানো, রিসোর্স রিকভারির জন্য অবকাঠামোর সুযোগ স্থাপন, মেডিকেল বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ও কম্পোস্ট প্ল্যান্ট স্থাপনের মাধ্যমে আমিনবাজার ল্যান্ডফিল প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে।

 

এ সময় স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদসহ মন্ত্রণালয় ও উত্তর সিটি করপোরেশনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *