Sharing is caring!


নওগাঁ প্রতিনিধি \ নওগাঁর নিয়ামতপুর থেকে পোরশা আঞ্চলিক একটি সড়ক উন্নয়ন (মেরামতের) কাজে ইটের খোয়া-বলুর মিশ্রনের পরিবর্তে মাটি ব্যবহারের অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্থানীয় বাসিন্দারা অভিযোগ করে-সড়ক বিভাগ ও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সড়কের পাশের জমি ও গাছের গোড়া থেকে মাটি নিয়ে পিচঢালা পথে ব্যবহার করে দ্রুত কাজ শেষ করছেন। এদিকে উন্নয়ন কাজটির তথ্য জানতে গেলে নওগাঁ সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী হামিদুল হক সাংবাদিকদের সাথে অশোভন আচরন করেছেন। কোন তথ্যই দেননি। জানা গেছে, চলতি অর্থ বছরের বরাদ্দে এপ্রিল মাসে নিয়ামতপুরের আঞ্চলিক সড়টিতে মেড়ামতের কাজ শুরু করে সড়ক বিভাগের নিয়োগকৃত ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। নিয়ম অনুসারে সড়কে সৃষ্ট গর্ত ভড়াটসহ মেড়ামতে ব্যবহার করা হবে ইট ও বালুর মিশ্রন। কিন্তু তার পরিবর্তে ব্যবহার করা হচ্ছে এঁটেল মাটি। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, সড়ক বিভাগের একজন তদারকি কর্মকর্তা ও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের লোকজনের উপস্থিতিতেই সড়কের মেরামত কাজ চলছে। তাদের সামনেই কর্মিরা সড়কের পাশের কাটা গাছের গোড়া থেকে এঁটেল মাটি সংগ্রহ করে খোয়ার সাথে মিশ্রন করছেন। এসময় মাটি ব্যবহারের বিষয়টি জানতে চাওয়া হলে নাম প্রকাশে না করে ঠিকারদারী প্রতিষ্ঠানের কর্নধার বলেন, বালু ও খোয়ার কাজ তিনি শেষ করেছেন। মাটি ব্যবহার করছে সড়ক বিভাগের লোকজন। এতে তার কোন সংশ্লিষ্টতা নেই। নিজের পরিচয় গোপন রেখে সড়ক বিভাগের তদারকী কর্মকর্তা ওই কাজে মাটি ব্যবহারের কথা ¯^ীকার করে বলেন, সড়কের ময়েশ্চার ঠিকরাখতে মাটি ব্যবহারের নিয়ম রয়েছে। উন্নয়ন কাজটির তথ্য জানতে নওগাঁ সড়ক ও জনপথ বিভাগের দায়িত্বরত নির্বাহী প্রকৌশলী হামিদুল হকের কাছে তাঁর অফিসে গেলে তিনি এ বিষয়ে কোন তথ্য দেননি। সাংবাদিকদের সাথে চরম অশোভন আচরন করেন প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী নির্বাহী প্রকৌশলী হামিদুল হক।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *