Sharing is caring!

নাটোর-২ আসন: জনপ্রিয়তা পেতে ‘হামলার

অভিযোগ’কে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার

করছেন দুলুপত্নী

নিউজ ডেস্ক: নাটোর-২ (নাটোর সদর ও নলডাঙ্গা উপজেলা) আসনে বিএনপি নেতা রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলুর স্থলে নির্বাচন করছেন তার স্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিন। অন্যদিকে একই আসনে নৌকা প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন শফিকুল ইসলাম শিমুল।সম্প্রতি নির্বাচনী প্রচারণায় শিমুল ও দুলুপত্নীর দেখা হলে উভয়ই কুশল বিনিময় করেন। এ সময় শফিকুল ইসলাম শিমুল দুলুপত্নী সাবিনা ইয়াসমিনকে ‘আপা’ সম্বোধন করে নির্বাচনী মাঠে কোন ধরণের কঠিন পরিস্থিতির মুখোমুখি যেন না হতে হয় সে বিষয়ে সর্বাত্মক আশ্বস্ত করেন।

কিন্তু এর ২ দিনের মাথায় নির্বাচনী মাঠে দুলুপত্নী তার প্রচারণা ও জনপ্রিয়তা বৃদ্ধির কৌশল অবলম্বন করেন। তিনি নিজ দলের কর্মীদের দিয়ে তার গণসংযোগে হামলা করিয়ে জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন।

এ ঘটনায় নিজে উদ্যোগী হয়ে শফিকুল ইসলাম শিমুল তার নির্বাচনী এলাকায় একটি অনুসন্ধান দল গঠন করে হামলার তথ্য উদঘাটন করেছেন। জানা গেছে, গণসংযোগ চলাকালীন সময়ে হামলার পরিকল্পনাটি স্বয়ং দুলুপত্নী সাবিনা ইয়াসমিনের নিজের। যারা এই হামলার সঙ্গে জড়িত তারা প্রত্যেকেই বিএনপি নেতাকর্মী।

তবে এই হামলার দায় আওয়ামী লীগ প্রার্থী শফিকুল ইসলাম শিমুলের ওপর চাপাতে একটি কৌশলও করেছেন সাবিনা ইয়াসমিন। নাটোর-১ (লালপুর-বাগাতিপাড়া) আসনের বিএনপি কর্মীদের নিয়ে তার নিজ গণসংযোগে হামলা চালায়। যাতে এই হামলার দায় সহজেই শিমুলের ঘাড়ে চাপানো যায় এবং বিশ্বাস করানো যায় তারা নাটোর-২ আসনের বিএনপি সমর্থক নেতাকর্মী নয়।

হামলার ব্যাপারে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক সৈয়দ মর্তুজা আলী বাবলু বলেন, শিমুলের জনপ্রিয়তায় ভীত হয়ে বিএনপি প্রার্থী সাবিনা ইয়াসমিন নিজের প্রতি জনগণের সহানুভূতি তৈরি করতে এসব ভুয়া কাজ করছেন।

এদিকে নির্বাচনের প্রাক্কালে দুলুপত্নী সাবিনা ইয়াসমিনের এমন কৌশলে বিস্মিত নাটোর-২ আসনের ভোটাররা। তারা বলছেন, কেবল জনগণের সহানুভূতি পেতে তিনি নিজের দলের লোকজনদের ওপরে নিজেই হামলা চালানোর পরিকল্পনা করবে কেউ তা কল্পনাও করেনি। বিএনপির নেতাকর্মীরাও এ নিয়ে স্তম্ভিত।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *