Sharing is caring!

নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে সামাজিকভাবে সকলকে এগিয়ে আসার আহবান জানিয়েছেন জেলার বিশিষ্ট জনেরা। সাম্প্রতিককালে দেশের বিভিন্নস্থানে নারী ও শিশু নির্যাতনের ঘটনা বেড়ে গেছে। সরকারের প্রচেষ্টায় বেশকিছু শিশু নির্যাতনের ঘটনার দ্রুত বিচার সম্পন্নও হয়েছে। শিশুদের সুরক্ষার জন্য সরাকারিভাবে ও বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থা কাজ করছে। কিন্তু সমাজের এক শ্রেণীর মানুষ নারী ও শিশুদের উপর নির্যাতন করছে। এমনটি মৃত্যুর ঘটনাও ঘটছে। নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধে সামাজিকভাবে সচেতনা বৃদ্ধি করে সকলকেই এগিয়ে আসতে হবে। প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। তাহলেই সমাজ তথা দেশ থেকে নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ সম্ভব হবে। শিশুরাই জাতীর ভবিষ্যৎ। শিশুদের রক্ষার জন্য অবশ্যই সকলকে সচেতন হতে হবে। দেশের অর্ধেক নারী। নারীরাও দেশ গড়ার কাজে অংশ নিচ্ছে। নারী নির্যাতনের কারণে পারিবারিক কলহ বাড়ছে। বিবাহ বিচ্ছেদও বাড়ছে। তাই সমাজের সকল স্তরের মানুষ ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এগিয়ে আসবেন নারী ও শিশুদের প্রতিরোধে এমনটায় আশা করছেন সচেতন মহল। উল্লেখ্য, নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে বিভিন্ন সরকারী ও বেসরকারী প্রতিষ্ঠান প্রচারণা ও জনসেচতনতামূলক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *