Sharing is caring!

স্টাফ রিপোর্টার \ চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ থানা পুলিশ এক ভূক্তভোগির সাধারণ ডায়েরী (জিডি) গ্রহণ করেনি বলে অভিযোগ উঠেছে। জানা গেছে, পূর্বে মামলায় আটক হওয়া ব্যক্তির জামিনে বেরিয়ে এসে প্রাণনাশসহ বিভিন্ন হুমকীর প্রেক্ষিতে রোববার সকালে নিরাপত্তা চেয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার কানসাট ইউনিয়নের রাজপাড়ার মৃত. তোরাব আলী ছেলে আবু তালেব মাহমুদ শিবগঞ্জ থানায় একটি লিখিত সাধারণ ডায়েরী করতে যাই। থানার ডিউটি অফিসার এ.এস.আই আতিক ডায়েরীটি গ্রহন না করে ওসির সাথে কথা বলতে বলেন। ডিউটি অফিসার আরো বলেন, ‘ওসি স্যার যদি অনুমতি দেন, তাহলে ডায়েরীভূক্ত করতে পারবো’ বলে জানান ভূক্তভোগি আবু তালেব মাহমুদ। এদিকে, লিখিত ডায়েরীতে আবু তালেবের স্ত্রী আঁখি তারা বেগম বাদি হয়ে ২০১৪ সালের ১৯ ফেব্রæয়ারী মামলা দায়ের করেন, মামলা নম্বর-৪১৮/১৪। মামলায় আদালত গত ২৩/০৩/২০১৭ ইং তারিখে আসামী নুরুজ্জামান কসাইকে এক বছরের কারাদন্ড ও ২৫ লাখ টাকার অর্থদন্ডের রায় ষোষণা করেন। পরে আদালত ১৯/০৪/২০১৭ইং তারিখে ৬৭২ স্মারকে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করেন। গ্রেফতারী পরোয়ানার প্রেক্ষিতে এস.আই রেজাউল করিম চলতি বছরের ২০মে দিবাগত রাতে সাজাপ্রাপ্ত আসামী নুরুজ্জামানকে গ্রেফতার করে। থানায় নিয়ে যাওয়ার পরে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়। আসামী ছেড়ে দেয়া বিষয়ে জাতীয় ও স্থানীয় বিভিন্ন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পর তাকে আবারো গ্রেফতার করে পুলিশ। ৬ মাস কারাবাস করার পর গত ৩০ নভেম্বর অন্তর্বতীকালীন জামিনে মুক্ত হয়ে এলাকায় এসে মামলার বাদির পরিবারকে বিভিন্নভাবে প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে নুরুজ্জামান কসাই। বাধ্য হয়ে নিরাপত্তা চেয়ে শিবগঞ্জ থানায় সাধারণ ডায়েরী করতে গেলে থানা পুলিশ তা গ্রহণ না করে ভূক্তভোগি আবু তালেবের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ হাবিবুল ইসলাম হাবিব। থানা থেকে খালি হাতে ফিরে তিনি নিরাপত্তা চেয়ে জেলা পুলিশ সুপারের বরাবর একটি আবেদন পোষ্ট অফিসের মাধ্যমে পাঠান বলে জানান। এব্যাপারে শিবগঞ্জ থানার ডিউটি অফিসার এ.এস.আই আতিক জানান, সাধারণ ডায়েরী নিতে আমার কোন সমস্যা নাই। ওসি স্যার যদি ডায়েরীটি নিতে বলেন, তাহলে আমি তা নিবো। এব্যাপারে শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ হাবিবুল ইসলাম হাবিব জানান, আমার কাছে কেউ জিডি করতে এসে ফিরে যায়নি। থানায় কেউ জিডি আসলে তা আমরা গ্রহণ করবো।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *