Sharing is caring!

প্রশ্নফাঁস চক্রের মূলোৎপাটনের আদ্যোপান্ত

 দেশে এখন প্রধান আলোচনার বিষয়বস্তু হচ্ছে প্রশ্নফাঁস। এই আলোচনার মূলে রয়েছে প্রশ্নফাঁস নিয়ে আশঙ্কা ও ভীতি। পরীক্ষার্থী ও অভিভাবক উভয়েই এই ভয়ে ভীত।

এটা ঠিক যে, কয়েক বছর আগেও বিভিন্ন পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস মহামারীর আকার ধারণ করেছিল। তবে স্বস্তির বিষয় এই যে, গত দু’টি পাবলিক পরীক্ষায় এমনটা হয়নি। যার ফলে, পরীক্ষার্থীরা এবং অভিভাবকরা কিছুটা হলেও স্বস্তি পেয়েছেন। এরই ধারাবাহিকতায় এবারের পরীক্ষাকে নিশ্ছিদ্র করার জন্যে পরিকল্পনা ও আয়োজনের  শেষ নেই। সরকার প্রশ্নফাঁস রোধে নিয়েছেন কঠোর সব পদক্ষেপ। প্রশ্ন-ফাঁসকারীদের আটক করতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নজরদারি কঠোরতর করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। পরীক্ষার্থীদের প্রশ্নপত্র পাওয়ার আশায় নয়, প্রস্তুতি নিয়েই পরীক্ষা দেয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করতে কার্যক্রম পরিচালনা করছেন তারা। এরইমধ্যে পুলিশের তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) দেশের সবচেয়ে বড় প্রশ্ন-ফাঁসকারী চক্রটি আটক করেছেন।

সবচেয়েবড়প্রশ্নফাঁসচক্রটিরমূলোৎপাটনহয়েছেবলেদাবিকরেছেনসিআইডি।সিআইডিসূত্রমতে, প্রশ্নফাঁস চক্রেরমূলহোতাহাফিজুররহমানহাফিজওমাসুদরহমানতাজুলসহএখনপর্যন্তএইচক্রের৪৬জনকেগ্রেপ্তারকরাহয়েছে।অলিপ, ইব্রাহীম, মোস্তফা, তাজুল, হাফিজওবাঁধন -প্রশ্নফাঁস চক্রেরএই মূল৬ হোতাদের প্রত্যেকেরনিজস্বসহযোগীচক্রছিল।এদেরমধ্যেগতকয়েকদিনেরঅভিযানেহাফিজওতাজুলগ্রেপ্তারহয়েছে।এছাড়াওঅভিযানচালিয়েচক্রেরমূলহোতাবিকেএসপিরসহকারীপরিচালকঅলিপকুমারবিশ্বাস, ৩৮-তমবিসিএসেনন-ক্যাডারেসুপারিশ প্রাপ্তইব্রাহীমমোল্লা, বিএডিসিরসহকারীপ্রশাসনিককর্মকর্তামোস্তফাকামাল, আইয়ুবআলীবাঁধনসহ৯জনকেগ্রেপ্তারকরাহয়।এইচক্রটিবিসিএসপরীক্ষায়ওজালিয়াতিকরেছে।সিআইডিবলছেন, ভর্তিওনিয়োগপরীক্ষায়মূলতদুইভাবেজালিয়াতিহয়।একটিচক্রপ্রশ্নফাঁসকরে,অন্যচক্রটিপরীক্ষারদিনপ্রশ্নসংগ্রহকরেসমাধানবেরকরে।এরপরডিজিটালডিভাইসেরমাধ্যমেতাপরীক্ষার্থীদেরসরবরাহকরা হয়।

পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, চক্রটি গ্রেপ্তার হওয়ার পর কিছুটা হলেও তাদের মনে স্বস্তি এসেছে। গত বছরের মতো কিংবা তার থেকে একটি ভালো পরীক্ষার প্রত্যাশা করছেন তারা।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *