Sharing is caring!

স্টাফ রিপোর্টার \ আজ ১৭ অক্টোবর, প্রয়াত চাঁপাইনবাবগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোঃ জাহিদুল ইসলামের প্রথম প্রয়াণ দিবস। এই উপলক্ষে আজ মঙ্গলবার বিকেলে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সার্কিট হাউস মিলনায়তনে মরহুমের স্মরণে ও আত্মার মাগফেরাত কামনায় মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেছে জেলা প্রশাসন। এই দিনেই জেলার সকল শ্রেণী পেশার মানুষকে কাঁদিয়ে পরপারে পাড়ি দিয়েছিলেন প্রয়াত জেলা প্রশাসক জাহিদুল ইসলাম। এজন্যই দিনটি চাঁপাইনবাবগঞ্জবাসীর কাছে অত্যন্ত স্মরণীয় হয়ে রয়েছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ এর সকল বিভাগ নিয়ে যার সর্বক্ষন ছিল চিন্তা-ভাবনা। চাঁপাইনবাবগঞ্জে যোগদান করার পর থেকেই সারাক্ষন ভাবতেন জেলার উন্নয়ন ও সমস্যা সমাধানের জন্য। সকালে ঘুম থেকে উঠেই ভাবতে শুরু করতেন জেলাকে নিয়ে। এমনও সময় দেখা যেতো গভীর রাতেও তিনি জেলার সুনাম বৃদ্ধির জন্য এখানে ওখানে ছুটে বেড়িয়েছেন। খুব কম সময় হলেও তাঁর কাজ এবং পরিকল্পনায় চাঁপাইনবাবগঞ্জের সরকারী ও বেসরকারী প্রশাসন, হতদরিদ্র, সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষসহ সকলের প্রাণের মানুষ হয়ে উঠেছিলেন তিনি। কিন্তু চাঁপাইনবাবগঞ্জবাসীর সুখ বেশীদিন সহ্য হয়নি। বিধাতার ডাকে সাড়া দিয়ে হঠাৎ করেই সকল মায়া ত্যাগ করে চলে গেছেন পৃথিবী ছেড়ে তিনি। আমের রাজধানী চাঁপাইনবাবগঞ্জকে গ্রীণ সিটি হিসেবে গড়ে তোলার জন্য দিনরাত কাজ করেছেন। তাঁর ইচ্ছা পুরণের আগেই চলে গেছেন তিনি ইহলোক ছেড়ে। সকল জেলা প্রশাসকই জেলার উন্নয়ন ও সমস্যা নিয়ে কাজ করেছেন, কিন্তু তিনি ছিলেন একটু অন্য রকম। তাঁর পরিকল্পনা ও কাজের ধারা দেখে এবং দেশের ও জেলার প্রতি আন্তরিকতা অনুভব করে অনেকেই ভাবতেন, যে মাটিতে জন্মেছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, সে মাটিতেই জন্ম জাহিদুল ইসলামেরও। গোপালগঞ্জের মাটিতে যার জন্ম, সে মানুষই তো হয় এরকম উদার মনের ও দরদী মনের। চাঁপাইনবাবগঞ্জের প্রয়াত জেলা প্রশাসক মোঃ জাহিদুল ইসলামের প্রথম প্রয়াণ দিবসে মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করেছেন “দৈনিক চাঁপাই দর্পণ” এর সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম রঞ্জু, আমার চ্যানেল আই দর্শক ফোরাম চাঁপাইনবাবগঞ্জের সকল সদস্যবৃন্দ ও “দৈনিক চাঁপাই দর্পণ” এর উপদেষ্টা পরিষদের সকল সদস্যগণ। উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ১৭ অক্টোবর সোমবার চাঁপাইনবাবগঞ্জের জনপ্রিয় জেলা প্রশাসক, সাধারণ মানুষসহ সকলের কাছে দরদীমনের মানুষ মোঃ জাহিদুল ইসলাম জেলাবাসীকে কাঁদিয়ে পরপারে পাড়ি দিয়েছিলেন। চাঁপাইনবাবগঞ্জের প্রয়াত জেলা প্রশাসক মোঃ জাহিদুল ইসলাম ২০১৬ সালের ১৭ অক্টোবর সোমবার সকাল সোয়া ১০টায় রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে সভা চলাকালিন সময়ে হৃদরোগে আক্রান্ত হন। তাৎক্ষনিক তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। তিনি ২০১৬ সালের ২৬ জানুয়ারী চাঁপাইনবাবগঞ্জের জেলা প্রশাসক হিসেবে যোগদান করেন। জেলা প্রশাসক মোঃ জাহিদুল ইসলাম গোপালগঞ্জের সুকতাইল গ্রামে ১৯৬৮ সালে জন্ম গ্রহণ করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৪৮ বছর। তিনি ১৩মত বিসিএস ক্যাডারে যোগদান করেন। তাঁর পিতার নাম মৃত মোঃ ছায়েদুল হক মোল্লা। তিনি মৃত্যুকালে স্ত্রী, ১ ছেলে ও ২ মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। একই দিন বিকেল পৌনে ৩টার দিকে রাজশাহী মেডিকেল থেকে একটি এ্যাম্বুলেন্সে মরহুমের মরদেহ জেলা প্রশাসকের বাংলোতে নিয়ে আসা হয়। পরে বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের শ্রদ্ধা জানানোর জন্য রাখা হয়। বিকেল সোয়া ৪টায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের ফকিরপাড়া ঈদগাহ মাঠে জানাযা ও দোয়া শেষে মরহুমের মরদেহ নিয়ে লাশবাহী গাড়ি গ্রামের বাড়ি গোপালগঞ্জে রওয়ানা হয়। জেলার প্রিয় জেলা প্রশাসককে একনজর দেখার জন্য হাজারো মানুষ ভীড় জমায়।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *