Sharing is caring!

সোনামসজিদ স্থলবন্দর সিএন্ডএফ এজেন্ট এ্যাসোসিয়েশনের তৎকালিন কোষাধ্য¶ ও ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মনিরুল ইসলামকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনী ব্যবস্থার মাধ্যমে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন নিহত মনিরুলের পরিবারের সদস্যরা। এ্যাসোসিয়েশনের আভ্যন্তরীন কোন্দলের জের ধরেই এই হত্যাকান্ড হয় বলে ধারণা নিহতের পরিবার ও স্থানীয়দের। সামান্য একটি পদ নিয়ে কোন্দলের কারণে একজন মানুষকে রাতে গুলি করে হত্যা করতে পারে মানুষ, এটা অভাবনীয়। তারপরও বাস্তবে সেটা ঘটেছে। যে বা যারা এই হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত তারা অবশ্যই মনুষত্যহীন। একজন মানুষ আর একজন মানুষকে হত্যা করে পুরো পরিবারের শান্তি নষ্ট করে দেয়। অভিভাবকহীন করে দেয়, ঈদের খুশির দিনে এই পরিবারের আহাজারিতে আকাশ-বাতাস ভারি হয়ে উঠে। এমন কাজই করে আবার মানুষরুপী অমানুষগুলো। নিজের সন্তান বা পরিবারের কথা ভাবলেই, হত্যাকারীরা সহজেই বুছতে পারবে ওই পরিবারের অবস্থা কি?। কিন্তু বিবেক বর্জিত এসব মানুষের সর্বোচ্চ কঠোর আইনী ব্যবস্থা হওয়া উচিৎ। তাহলে হয়তো অন্য অপরাধকারীরা সতর্ক হবে। তাই এই হত্যকান্ডের কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা নেবেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এমনটায় আশা করছেন নিহত মনিরুলের পরিবার ও সচেতন মহল। উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের ২৪ অক্টোবর শুক্রবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে শিবগঞ্জ স্টেডিয়াম এলাকায় মনিরুল ইসলামকে মাথা, বুক ও মাজায় গুলি করে হত্যা করে দূর্বৃত্তরা একটি প্রাইভেট কারে করে পালিয়ে যায়। পুলিশ পুকুরিয়া এলাকা থেকে এঘটনায় জড়িত সন্দেহে সোনামসজিদ স্থলবন্দর সিএন্ডএফ এজেন্ট এ্যাসোসিয়েশনের তৎকালিন সভাপতি আখিরুল ইসলাম, সিনিয়র সহ-সভাপতি সিরাজুল ইসলাম মুন্সি ও সাধারণ সম্পাদক তোহুরুল ইসলাম টুটুলকে গ্রেফতার করে। এসময় রক্তমাখা কার (ঢাকা মেট্রো-খ-১১-৩৪৮৩), ম্যাগজিন, ৩টি গুলির খোসা ও ১টি তাজা গুলি উদ্ধার করে। এই হত্যান্ডের বিচারের দাবিতে বিভিন্ন সময়ে নানা সংগঠনের আয়োজনে মানববন্ধন, সমাবেশসহ আন্দোলন কর্মসুচী পালিত হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *