Sharing is caring!

SAM_3272
শিবগঞ্জ সংবাদদাতা \ চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার কানসাটে আবারও ফরমালিন মুক্ত আমজাত পন্য রপ্তানীর অঙ্গিকার করলেন সকল আম ব্যবসায়ীগণল। শুক্রবার বিকেলে কানসাট রাজবাড়ি মাঠে কানসাট আম আড়ৎদার ব্যবসায়ী সমন্বয় কমিটির উদ্বোধন ও  আলোচনা সভায় সভাপতি আবু তালেব এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ শিবগঞ্জ আসনের সংসদ সদস্য, বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত কমিটির সদস্য মো. গোলাম রাব্বানী। বিশেষ অথিতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কানসাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বেনাউল ইসলাম, রাজনীতিবিদ আতাউর রহমান, আম আড়ৎদার ব্যবসায়ী সমš^য় কমিটির সাধারন সম্পাদক কাজী এমদাদুল হক, সহ-সভাপতি হাবীব উল্লাহ, আব্দুল মালেক, সহ-সাধারন সম্পাদক ওমর ফারুক টিপু, মানিরুল ইসলাম, শিবগঞ্জ আম আড়ৎদার সমিতি সভাপতি আবদুল মান্নান, সাধারণ সম্পাদক রুহল আমিন প্রমূখ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে গোলাম রাব্বানী এমপি বলেন, ফরমালিন কি জিনিস তা শিবগঞ্জবাসী জানেন না এমনকি আমে তা ব্যবহারও করেন না। গত বছর পরমালিন নামে মিথ্যা অপপ্রচার করে শিবগঞ্জ উপজেলার আমকে ধ্বংস করেছিল প্রশাসন। আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। তিনি আরো বলেন, প্রশাসন অযথা আম ব্যবসায়দের হয়রানি করবেন না, আর মিথ্যা অপবাদ দিয়ে যদি কোন ব্যবসায়ীকে হয়রানি করে চাঁদা আদায়ের চেষ্টা করা হয়, তাহলে সেখানেই দাঁড়িয়ে এর প্রতিবাদ করা হবে। আলোচনা সভায় সাধারণ পথচারিদের যাতায়াতের সুবিধার্থে রাস্তার যানজট নিরসনের ব্যপক প্রস্তুতি ও সকল আম বাজারের সকল সমস্যা সমাধান নিয়ে আলাপ আলোচনা করা হয়। এছাড়া ইজারা আদায়ের বিষয়ে সকল আম ব্যবসায়ীকে অবহিত করে এমপি গোলাম রাব্বানী বলেন আপনার ইজারাদার (খাজনা) মণ প্রতি ৬ টাকা দিবেন। এর বেশি দিবেন না। SAM_3293আর যদি কেউ এর বেশি নেয়া চেষ্টা করে তাহলে সেখান প্রতিবাদ জানাবেন। উল্লেখ্য, গত ২৪ মে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর কবীর বলেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের আমের সুনাম আছে, আর এ সুনাম ধরে রাখা এবং এর বিভিন্ন বিষাক্ত দ্রব্য থেকে রক্ষা করা সবার কর্তব্য। আমরা চাই চাঁপাইনবাবগঞ্জের আম ঢাকা সহ দেশের বাইরে আম রপ্তানী হোক। তাই সকল আম ব্যবসায়ীদের বিভিন্ন ধরণে বিশাক্ত দ্রব্য মিশানো থেকে বিরত থাকা, যারা খাদ্যদ্রব্যে ভেজাল, দেয় তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।  এসময় আম ব্যাবসায়ী ও আড়তদার নেতারা বলেন আমে ফরমালিন দেয়া হয় এটি যেমন চরম মিথ্যা, তেমনি আমকে ধ্বংশের জন্য একটি স্বার্থান্বসেী মহল চাঁপাইনবাবগঞ্জের আমে ফরমালিন দেয়া হয় এমন মিথ্যা কলঙ্কে কলঙ্কিত করে চরমভাবে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে আমচাষী, ব্যবসায়ী ও আড়তদারদের সর্বনাস করছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জের আমে এর আগে কখনই ফরমালিন দেয়া হয়নি। এরপরও উপস্থিত ব্যবসায়ী ও চাষিরাসহ আড়তদাররা আগামীতেও আমে ফরমালিন ও কার্বাইড ব্যবহার না করার অঙ্গিকার করেন। আমকে বাঁচাতে জেলা প্রশাসকের কাছে সব অপচেস্টা নস্যাতে এগিয়ে আসার অনুরোধ জানান ব্যবসায়ী ও চাষিরাসহ আড়তদাররা। এছাড়াও  ভারত থেকে মরমালিন মেশানো আমদানীকৃত আম বন্দরে যথাযথ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে পরীক্ষার পর ছাড় দেয়া এবং ভারত তেকে আামাদনীকৃত আমে ফরমারিনের অস্তিত্ব পাওয়া গেলে তা ধ্বংশের দাবীসহ দেশের আম বাঁচাতে ভারত থেকে আম আমদানী ৩ মাস বন্ধ রাখারও দাবী জানান ব্যবসায়ী ও চাষিরাসহ আড়তদাররা। জেলা প্রশাসনের কাছে কানসাটে বিএসটিআই কর্তৃক আম পরীক্ষা করে ছাড় দেয়ারও দাবী সংশ্লিস্টদের। আম ব্যবসায়ী, চাষি ও আড়তদাররা আম পরিবহনের সময় সড়কে গতবছরের মত মিথ্যা অজুহাত দিয়ে এবং বিতর্কিত মেশিন দিয়ে আম পরীক্ষা করে আম নস্ট না করা হয় তার জন্য জেলা প্রশাসনসহ সরকারের উচ্চ পর্যায়ের সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি আবেদন ও সহযোগিতার দাবি জানান।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *