Sharing is caring!

স্টাফ রিপোর্টার \ চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার ধাইনগর ইউনিয়নের নাককাট্টিতলা-রানীনগর এলাকায় স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা স্কুল পড়ুয়া ছাত্রীকে উত্ত্যক্তের ঘটনায় ১১জনের নাম উল্লেখ্য করে অজ্ঞাত আরো ১৪/১৫জনকে আসামী করে সোমবার রাতে শিবগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন সায়েদের ছেলে সাইদুর রহমান। অভিযোগে আসামীরা হলো- অত্র ইউনিয়নের রানীনগর গ্রামের মৃত জয়নাল মোড়লের ছেলে ও ধাইনগর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল কাদের(৬০), মৃত জয়নাল মোড়লের ছেলে বেলাল উদ্দিন(৪০), মোহবুল হোসেনের ছেলে হায়াতুল(৩৫), মৃত. বিশুর ছেলে ছোটন(৩৫), মৃত. সাইফুদ্দিনের ছেলে শাহ লাল(৩৫), পিতা অজ্ঞাত আকতার হোসেন(৪৫), মৃত. বেলালের ছেলে মামুন (৪০), সাদিকুল ইসলাম সাদেক((৪৬) ও পিতা অজ্ঞাত  শুভ নাম উল্লেখ্য সহ আরো ১৪/১৫জন। এব্যাপারে তদন্ত কর্মকর্তা এস.আই গোলাম মোস্তফা জানান, সোমবার সকালে ধাইনগর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুল কাদের গ্রæপের লোকজন বর্তমান ধাইনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তাবারিয়া চৌধুরীর সমর্থক সাইদুর রহমানকে মারধরের ঘটনায় সোমবার রাতে ১১জনের নাম উল্লেখ ও আরো অজ্ঞাত ১৪/১৫জনকে আসামী করে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করে সাইদুর রহমান। বর্তমানে ঘটনার এলাকায় আইন শৃক্সখলা পরিস্থিতি নিয়তন্ত্র রয়েছে। ঘটনাস্থলে অভিযুক্তদের কাউকে পাওয়া যায়নি। তবে, স্থানীয় কোন নিরপেক্ষ ব্যক্তির সাথে যোগাযোগ করতে পারিনি। এলাকাতে যারা আছেন, তারা কেউ না কেউ একটি গ্রুপের লোকজন। তাই এখন পর্যন্ত সঠিক তথ্য পাওয়া যায়নি। তবে, তদন্ত চলছে, ঘটনার সঠিক তথ্য উদঘটন হলে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। উল্লেখ্য, নাককাট্টিতলা-রানীনগর এলাকায়  স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা স্কুল পড়ুয়া ছাত্রীকে উত্ত্যক্তের ঘটনাকে কেন্দ্র করে সোমবার সকালে ধাইনগর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুল কাদের ও বর্তমান ধাইনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তাবারিয়া চৌধুরী এই গ্রæপ দুটির মধ্যে রানীনগর উচ্চ বিদ্যালয় এলাকায় উত্তেজনা দেখা দেয়। অবস্থান নেয় বিভিন্ন দেশীয় অস্ত্র-স্বস্ত্র নিয়ে উভয়পক্ষ। বর্তমানেও ওই এলাকায় আওয়ামীলীগের দু’গ্রুপ অবস্থান করছেন বলে স্থানী সূত্রে জানা গেছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ধাইনগর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুল কাদের মুঠোফোনে নবম শ্রেণী পড়–য়া এক ছাত্রীকে অশ্লীল ভাষা ও কুপ্রস্তাব এবং গ্রাম্যপুলিশ সোহরাব হোসেনের ছেলে সুজনের কাছে মামুন নামে একজন টাকা পেতো। রোববার পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে সুজন ও মামুনের সাথে ধস্তা-ধস্তি হয়। এরপর সোমবার সকালে আবারো এ মারধরের ঘটনাকে কেন্দ্র করে উভয় গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। এছাড়া সোমবার সকালে রানীনগর মোড়ল টোলা মোড়ে তাবারিয়া চৌধুরীর ৩জন মোটরসাইকেলযোগে আসলে কাদের কয়েকজন সাইদুর রহমানকে মারধর করে। এঘটনায়  ১১জনের নাম উল্লেখ্য করে আরো ১৪/১৫জনকে অজ্ঞাত আসামী করে শিবগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন সাইদুর রহমান।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *