Sharing is caring!

ফেনীতে অভূতপূর্ব উন্নয়ন

বাংলাদেশের মানচিত্রে ফেনী একটি গুরুত্বপূর্ণ জেলা। তিনদিকে ভারত দিয়ে ঘেরা এই জেলাটি। ফেনীর ওপর দিয়ে যাতায়াত করে বহু দূরপাল্লার যানবাহন। আশেপাশের জেলাগুলোতে ফেনী হয়ে যোগাযোগ রাখতে হয় রাজধানী ঢাকার সাথে। বহু যানবাহন চলাচলের কারণে প্রায়ই দুর্ঘটনা হয় ফেনীতে। তাই ফেনীর জেলা হাসপাতালে রয়েছে বাড়তি গুরুত্ব। এসব কথা মাথায় রেখেই শয্যা সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে ফেনীর জেলা হাসপাতালে।

শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগ সরকারকে স্বাস্থ্যবান্ধব বলছে ফেনীর মানুষ। কারণ গত ১০ বছরে ব্যাপক উন্নতি হয়েছে স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে। ফেনীর জেলা হাসপাতালগুলো হয়ে ওঠেছে প্রসূতিক্ষেত্রে দেশের সেরা। স্থানীয় মানুষদের চাহিদা মেটানোর পাশাপাশি রয়েছে দু্র্ঘটনাগ্রস্থদের চিকিৎসার ব্যবস্থা। প্রায় সব ধরণের আধুনিক চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে হাসপাতালটিতে। উন্নত চিকিৎসা সেবা দিতে পেরে ডাক্তাররাও খুশি। চিকিৎসা সেবায় আওয়ামী লীগ সরকারের এই অভূতপূর্ব উন্নয়ন তরুণ ভোটারদের আকৃষ্ট করছে।

প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার পৈতৃক নিবাস এই ফেনী জেলাতেই। খালেদা জিয়া তিনবার প্রধানমন্ত্রী হলেও ফেনীতে তেমন কোনো উন্নয়ন করেননি। বরং খালেদা জিয়ার নেতৃত্বাধীন বিএনপি জামায়াত ক্ষমতায় থাকাকালে সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর শুধুমাত্র অত্যাচারই করেনি। অনেককেই দেশ ত্যাগে বাধ্য করা হয়েছে। অনেক হিন্দু পরিবার নিজ এলাকা ছেড়ে চলে যান ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যে। আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর হিন্দু মুসলিম মিলেমিশে বসবাস করছে ফেনীতে। এই সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও আস্থা রাখতে চান আওয়ামী লীগ তথা শেখ হাসিনার সরকারের ওপরেই।

দেশের সবথেকে বড় ছয় লেনের ফ্লাইওভার হয়েছে ফেনীতে। যার ফলে দীর্ঘ যানজট থেকে মুক্তি পেয়েছে ফেনীবাসী। ফেনী শহরের ওপর দিয়েই চলাচল করে ঢাকা চট্টগ্রামের দূরপাল্লার বাসগুলো। দেশের সর্ববৃহৎ ছয় লেনের এই ফ্লাইওভার ফেনীর যোগাযোগ ব্যবস্থায় এনেছে আমূল পরিবর্তন। সঙ্গে রয়েছে চকচকে রাস্তা। এলাকার মানুষও খুশি আওয়ামী লীগের শাসনে।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিবাস ফেনীতে হলেও এই জেলায় কোনো উন্নয়নই হয়নি। বরং আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর ফেনীতে ছয় লেনের দেশের সবথেকে বড় ফ্লাইওভার নির্মাণ করে সকলের দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *