Sharing is caring!

বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে সরকারের পাশাপাশি সমাজের সকলকে এগিয়ে আসার আহবান জানিয়েছেন জেলার বিশিষ্ট জনেরা। প্রশাসনের প¶ থেকে বাল্যবিবাহ বন্ধে জনসচেতনতাসহ বিভিন্ন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। কিন্তু সমাজের সকলের অংশ গ্রহণ ছাড়া বাল্যবিবাহ বন্ধ বা প্রতিরোধ সম্ভব নয়। বাল্য বিয়ে বন্ধে সবচেয়ে বেশী সচেতন হতে হবে অভিভাবকদের। অভিভাবকগণ সচেতন হলেই সমাজ থেকে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ সফলভাবে সম্ভব। যেখানে জেলা প্রশাসন বা পুলিশ প্রশাসন তাৎ¶নিকভাবে পৌছতে পারেনা, সেসব এলাকায় বাল্য বিয়ে এখনও হচ্ছে। তাই শুধু প্রশাসনের দিকে চোখ রাখলেই হবে না, সমাজের বিভিন্নস্তরের সচেতন মানুষদের এগিয়ে আসতে হবে বাল্য বিয়ে বন্ধে। বাল্য বিয়ে সমাজের একটি অভিষাপ। অল্প বয়সে বিয়ে হওয়ায় শিশু মৃত্যু ও মা মৃত্যুর হার শতভাগ নিয়ন্ত্রণ সম্ভব হচ্ছে না। সমাজের সকল শ্রেণী-পেশার মানুষের অংশ গ্রহণই পারে শতভাগ সফলতা নিয়ে আসতে। অবশ্য বিভিন্ন বেসরকারী সংগঠন বাল্য বিয়ে প্রতিরোধে কাজ করে চলেছে। প্রশাসন, বিভিন্ন বেসরকারী সংগঠন বাল্য বিয়ে রোধ, ইভটিজিং, মানবাধিকার, নারী ও শিশু পাচার, এইচ আইভি এইডস্, পুষ্টি প্রজনন, ¯^াস্থ্য বিষয়ে প্রচারণা চালিয়ে আসছে। উল্লেখ্য, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার মহারাজপুর ইউনিয়নের টিকরা গ্রামে বুধবার এক অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রীর বাল্য বিয়ে বন্ধ করেছে উপজেলা প্রশাসন ও সদর থানা পুলিশ। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে মহারাজপুর টিকরা গ্রামের মোঃ মনিমুল ইসলামের শিশু কন্যা ডোলপাড়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী মোসাঃ তারমিহিম আক্তার বৈশাখী (১৩) এর বিয়ে অনুষ্ঠান চলাকালে বাল্য বিয়েটি বন্ধ করা হয়। মহারাজপুর সালিম ডোলপাড়া গ্রামের জালালউদ্দিনের ছেলে মোঃ হারুনুর রশিদের (২২) এর সাথে মোঃ মনিমুল ইসলামের শিশু কন্যা ডোলপাড়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী বৈশাখীর বিয়ে হচ্ছিল। খবর পেয়ে দ্রুত বিয়ে বাড়িয়ে গিয়ে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও পুলিশ বাল্য বিয়েটি বন্ধ করে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মহারাজপুর ইউনিয়নের টিকরা গ্রামে বাল্য বিয়ে হচ্ছে এমন সংবাদ পেয়ে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট রফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল গিয়ে বিয়ে বন্ধ করে। মেয়ে ও ছেলের বাল্য বিয়ে না দেয়ার শর্তে উভয় পরিবারের অভিভাবকের মুচলেকা নেয়া হয় এবং ৫’শ টাকা জরিমানাও করা হয়।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *