Sharing is caring!

স্টাফ রিপোর্টার \ বাল্য বিয়ে রোধ নিশ্চিত করার লক্ষে কর্মশালা হয়েছে চাঁপাইনবাবগঞ্জে। জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে এই কর্মশালা হয় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে। রবিবার বিকেলে কর্মশালায় প্রধান অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এরশাদ হোসেন খান। বাল্য বিয়ে রোধে করণীয় এবং জেলায় আইনানুগভাবে বিবাহ নিশ্চিতকরণ বিষয় তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন নবাবগঞ্জ মহিলা সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর নজরুল ইসলাম, নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ প্রফেসর সুলতানা রাজিয়া, গোমস্তাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সিহাব রায়হান, মনিম উদ দৌলা চৌধুরী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মোস্তাফিজুর রহমান, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মোসা. সাহিদা আখতার, গোমস্তাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ জামাল উদ্দিন, কসবা ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান, শিবগঞ্জ উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা বরুণ কুমার, মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মারুফুল হক, আদিবাসী নেত্রী বিচিত্রা তিরকী, গৌরি চন্দ সিতু, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা কাজী সমিতির সভাপতি কাজী মোঃ সেতাউর রহমান, ইউনিসেফ প্রতিনিধি, এনজিও প্রতিনিধিসহ অন্যরা। উপস্থিত ছিলেন নবাবগঞ্জ সরকারী কলেজের বাংলা বিভাগের প্রধান প্রফেসর ড. মাযহারুল ইসলাম তরু, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজ¯^) মোঃ রহমতুল্লাহ, নাচোল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজমুল হক, সদর এসিল্যান্ড মাসুদ উর রহমান, শিবগঞ্জ এসিল্যান্ড মোঃ বরমান হোসেন, সহকারী কমিশনার নিশাত আঞ্জুমান, ইসলামিক ফাউন্ডেশন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মোঃ আবুল কালাম, এ্যাড. মোঃ আফসার আলী, জাতীয় মহিলা সংস্থার জেলা চেয়ারম্যান এ্যাড. ইয়াসমীন সুলতানা রুমা, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি ও ‘দৈনিক চাঁপাই দৃষ্টি’র সম্পাদক এমরান ফারুক মাসুম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও ‘দৈনিক চাঁপাই দর্পণ’ এর সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম রঞ্জু, জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা মোঃ শফিকুল ইসলামসহ বিভিন্ন সরকারী অফিস প্রধান ও প্রতিনিধিগণ, জেলার বিভিন্নস্থানের কাজী ও জেলার বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়াকর্মীরা। কর্মশালায় করণীয় যে বিষয়গুলো উঠে আসে সেগুলো হচ্ছে, গোপনে নোটারী পাবলিক এর মাধ্যমে বিয়ে বন্ধ করা, জেলার বাহিরে গিয়ে বাল্য বিবাহ সম্পন্ন হওয়া, বাল্য বিয়ে রেজিষ্ট্রি না করা, জন্ম সনদ পরিবর্তণ না করা, নারী সংগঠনগুলোকে প্রশিক্ষনের মাধ্যমে সচেতন করা, গ্রামাঞ্চলে নাবালিকা মেয়েদের উত্যক্ত করা, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সচেতন করা, ইন্টারনেটে অশ্লিলতা ছবি বা ভিডিও প্রদর্শণ বন্ধ করা, হিন্দুদের পুরোহিত ছাড়াই অনভিজ্ঞ ঠাকুর দিয়ে বিয়ে সম্পন্ন করা বন্ধ, ঘটকদের তালিকা তৈরী ও প্রশিক্ষন প্রদান, অনিবন্ধিত বিবাহ রেজিষ্ট্রিকারীদের বিয়ে রেজিষ্ট্রিকরণ থেকে বিরত রাখা, হটলাইনে ৩৩৩, (বাল্য বিয়ে), প্রশাসন (১০৯) এবং ৯৯৯ (পুলিশ) নম্বরে সংবাদ দিয়ে আইনী ব্যবস্থা নেয়া, গ্রামে গ্রামে বিবাহ কমিটি গঠন করা। জেলাকে বাল্য বিয়ে মুক্ত করতে জেলা বিভিন্নস্তরের প্রায় ৫ হাজার জনকে প্রশিক্ষন দেয়া হবে বলে জানান অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি। এছাড়া দেশের মধ্যে বাল্য বিয়ের ঝুৃকিতে থাকা বেশ কিছু জেলার মধ্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা থাকায় উদ্বেগ প্রকাশ করে জেলাকে বাল্য বিয়ে মুক্ত করতে সমাজের সকল স্তরের মানুষের সহযোগিতা কামনা করা হয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *