Sharing is caring!

বিপদের দিনে ২০ দলীয় জোটে অবজ্ঞার শিকার

জামায়াত, পাশে পাচ্ছে না বিএনপিকে

নিউজ ডেস্ক: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর জামায়াতের অন্তর্কোন্দল, ভাঙ্গা-গড়া খেলা, বহিষ্কার, পাল্টাপাল্টি অভিযোগ নিয়ে বিন্দুমাত্র মাথা ব্যথা নেই বিএনপির। বরং সাংগঠনিকভাবে দুর্বল জামায়াতকে ২০ দলীয় জোট থেকে বাদ দিয়ে কলঙ্কের বোঝা থেকে মুক্তির পথ খুঁজছে বিএনপি। লন্ডন থেকে আসা নির্দেশনা অনুযায়ী, সাংগঠনিক দুর্বলতা কাটিয়ে শক্তিশালী দল হিসেবে পুনর্গঠিত হয়ে নতুনরূপে ফেরার কার্যক্রমে ব্যস্ত বিএনপি।দলটির একাধিক সিনিয়র নেতার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, রাজনৈতিক দূরদর্শিতার অভাবে বিএনপির যে রাজনৈতিক বিপর্যয় তৈরি হয়েছে তা থেকে উত্তরণই তাদের একমাত্র লক্ষ্য। জামায়াত সেখানে ফ্যাক্টর নয়।

জামায়াতের ভঙ্গুর রাজনীতি চর্চা এবং বিএনপির পুনর্বাসন প্রক্রিয়াসহ বিভিন্ন বিষয়ে কথা বলেছেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ। তার মতে, দলের সংস্কার, একাত্তরের ভূমিকার জন্য ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান নিয়ে নেতাদের পদত্যাগ ও বহিষ্কারের ঘটনায় যে অস্থিরতা সৃষ্টি হয়েছে তা জামায়াতের নিজস্ব বিষয়। জামায়াত ভেঙে যাক বা নতুন করে ফিরে আসুক, সেই বিষয়ে বিএনপির আর বিন্দুমাত্র আগ্রহ নেই। হ্যাঁ, এটি সত্য যে, একসময় জামায়াতের সাংগঠনিক শক্তি বিবেচনা করে তাদেরকে জোটে জায়গা দিয়েছিল বিএনপি। কিন্তু সেই জামায়াত এখন ক্ষয়ের পথে। সুতরাং এখন জামায়াতকে নিয়ে চিন্তা করাটা অহেতুক এবং সময় অপচয় করার সমান।

তিনি আরো বলেন, আমরা জামায়াতকে এখন বিলুপ্ত দল হিসেবেই বিবেচনা করি। আমি শুনেছি, বেশ ক’জন গুরুত্বপূর্ণ জামায়াত নেতা নতুন করে পদত্যাগ করতে পারেন। জোটের রাজনীতির নামে জামায়াত বিএনপির ইমেজ ব্যবহার করেছে। দলটির অপকর্মের কারণে বিএনপিকে দেশব্যাপী ধিক্কার ও অপমান সহ্য করতে হয়েছে। সুতরাং বিএনপি আর জামায়াতের পাপের ভাগ নিতে চায় না। জামায়াতের বাঁচা-মরা নিয়ে চিন্তা করা বাদ দিয়ে আমরা বিএনপিকে আগামী ২০২৪ সালের নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত করতে কাজ করছি।

বিষয়টি ভিন্নভাবে ব্যাখ্যা করে দলটির স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ২০ দলীয় জোটে ধীরে ধীরে গুরুত্ব হারাচ্ছে জামায়াত। তাদের জোট ছেড়ে যাওয়া-না যাওয়া নিয়ে তেমন কোনো ভাবনা নেই বিএনপির। জামায়াতের অবস্থা অনেকটা জলে ভাসা পদ্মের মতো। দলটি কোথাও ঠাঁই পাচ্ছে না। শুনেছি জামায়াত নিজ থেকে জোট ছেড়ে দেয়ার পরিকল্পনা করছে। বিষয়টি রহস্যজনক মনে হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, সংখ্যায় কম হলেও বিএনপির মধ্যে অনেকেই জামায়াতের ব্যাপারে আপত্তি তুলেছেন। কিন্তু মাঠের রাজনীতির সমীকরণ বিবেচনায় জামায়াতকে ছাড়তে রাজি হয়নি বিএনপির হাইকমান্ড। কিন্তু বর্তমানে সেই ভুল ভেঙেছে বিএনপির। ধর্মকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করে নয় বরং উদার রাজনীতি করে জনগণের হৃদয় জয় করতে চায় বিএনপি। আর কখনই দুই নৌকায় পা দেবে না বিএনপি।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *