Sharing is caring!

ভারতে গরু আনতে গিয়ে দালালের খপ্পরে পড়ে আটক চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার দূর্লভপুর-মনাকষা ইউনিয়নের ২০ রাখালকে দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানিয়েছেন ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্যরা। অবৈধভাবে গরু আনতে গিয়ে ঐ দেশের আইনশৃক্সখলা বাহিনীর সদস্যদের হাতে ধরা পড়লে, সেটা আলাদা বিষয়। কিন্তু ব্যক্তিগত কোন ব্যবসায়ীর কারণে এসব রাখালদের আটকে রাখা অবশ্যই অন্যায়। যে ব্যবসায়ীর কাছে টাকা পাওনা তার বিরুদ্ধে যে কোন ব্যবস্থা নিতে পারে পাওনাদার। কিন্তু নিরিহ রাখালদের আটকে রেখে পারিবারের মানুষদের অনিশ্চয়তায় ফেলা কোন সভ্য মানুষের কাজ নয়। রাখালরা সামান্য অর্থের বিনিময়ে গরু নিয়ে আসে। যদিও অবৈধভাবে অন্য দেশে যাওয়া আইনগত কোন ভিত্তি নেই। এসব রাখালদের ফিরিয়ে আনতে পাওনাদারের টাকা পরিষোধ করে বা যে কোন উপায়ে হোক ফিরিয়ে আনতে হবে। তাই এসব রাখালদের ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা নেবেন সংশ্লিষ্টরা এমনটায় আশা করছেন সচেতন মহল। উল্লেখ্য, ভারতে গরু আনতে গিয়ে দালালের খপ্পরে পড়ে আটক রয়েছে চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার দূর্লভপুর-মনাকষা ইউনিয়নের ২০ রাখাল। আর এসব রাখাল আটকের পর ২০ দিন পার হলেও বাড়ি না ফিরে না আসায় দুশ্চিতা ও আতঙ্কের মধ্যে দিন কাটাচ্ছে রাখালদের পরিবারগুলো। অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশ করার পর আটককৃত রাখালরা হচ্ছে, দুর্লভপুর ইউনিয়নের মনোহর গ্রামের এনামুলের ছেলে সোনু (২৫), ইদুলের ছেলে লিটন (১৯), মোখলেশের ছেলে ডালিম (২০), তোবুর ছেলে বাবু (২০), মোশারফের ছেলে শাকিব (২০), সফিকের ছেলে বাক্কার (২০), শুকুদ্দির ছেলে উজির (২০), ভিক্ষুর ছেলে মানিক (২৩), কুবলের ছেলে মেজের (২০), হবুর ছেলে অসিম (২০), জগনাথপুর গ্রামের কাইউমের ছেলে রাসেল (২০) সহ মনাকষা ইউনিয়নের গোপালপুর, তারাপুর ও সাহাপাড়া ও ঠুঠাপাড়া গ্রামের আরো প্রায় অজ্ঞাত ১০জন। জানা যায়, সাহাপাড়া নুরেশ মোড় গ্রামের আলহাজ্ব আয়েশ উদ্দিনের ছেলে ও অবৈধভাবে ভারতে গরুর নিয়ে আসার জন্য রাখাল পাঠানোর দালাল জোবু (৫৫) তার ভাই রবিউল ইসলাম রবুর মাধ্যমে ভারত থেকে গরু আনার জন্য উপজেলার মনাকষা ইউনিয়নের মাসুদপুর ও শিংনগর সীমান্ত এলাকা দিয়ে চোরাই পথে ভারতে ওই ২০ রাখালকে গত ৩১ আগষ্ট রাতে ভারতে পাঠায়।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *