Sharing is caring!

DSC02569প্রেস বিজ্ঞপ্তি \ রাজশাহী জেলার শাহমুখদুম থানার ভুগরইল গ্রামের আদিবাসী পাহাড়ীয়া সম্প্রদায়ের উপর হামলা, অগ্নিসংযোগ ও নির্যাতনের প্রতিবাদে আদিবাসী ছাত্র পরিষদ ও আদিবাসী যুব পরিষদের উদ্যোগে মঙ্গলবার সকাল ১১ টায় রাজশাহী সাহেব বাজার জিরোপয়েন্টে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে। মানববন্ধন কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন আদিবাসী যুব পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি হরেন্দ্রনাথ সিং। সঞ্চালনা করেন আদিবাসী ছাত্র পরিষদ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক নকুল পাহান। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন জাতীয় আদিবাসী পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক বিমল চন্দ্র রাজোয়াড়, দপ্তর সম্পাদক সূভাষ চন্দ্র হেমব্রম, রাজশাহী জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সুশেন কুমার শ্যামদুয়ার, রাজশাহী মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক আন্দ্রিয়াস বিশ্বাস, আদিবাসী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি বিভূতী ভূষণ মাহাতো, আদিবাসী ছাত্র পরিষদ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি হেমন্ত মাহাতো, আদিবাসী যুব পরিষদ রাজশাহী জেলার আহবায়ক নবদীপ লকড়া, যুগ্ম আহবায়ক হুরেন মুর্মু, আদিবাসী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির নারী বিষয়ক সম্পাদক সুমিতা রবিদাস, সাংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক সাবিত্রি হেমব্রম, আদিবাসী ছাত্র পরিষদ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সহ-সভাপতি মহাদেব রবিদাস, রাজশাহী কলেজ  শাখার যুগ্ম আহŸায়ক দুলাল মাহাতো। সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা শাজাহান আলী বরজাহান, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির রাজশাহী মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক দেবাষিশ প্রমানিক দেবু, বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টি রাজশাহী জেলার সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক প্রমুখ। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, আদিবাসীদের প্রতি প্রতিনিয়ত নির্যাতন-নিপীড়ন বেড়েই চলেছে। ভূগরইল গ্রামের এই নির্যাতনের এই ঘটনা তারই নামান্তর। এই কর্মসূচি থেকে ভূগরইল গ্রামের আদিবাসীদের সার্বিক নিরাপত্তার দাবি জানানো হয়। এ সকল চিহ্নিত ভূমিদস্যুদের ভূমি দখল তৎপরতার হাত থেকে রেহাই পেতে ভূক্তভোগী এলাকাবাসী ভূমি মন্ত্রনালয়, প্রশাসনসহ আইনশৃক্সখলা রক্ষকারী বাহিনীর স্থানীয় ও উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের হস্তক্ষপে কমনা করেছেন। উল্লেখ্য, রাজশাহী জেলার শাহমুখদুম থানার ভুগরইল গ্রামের আদিবাসী পাহাড়ীয়া সম্প্রদায়ের লোকজন উচ্ছেদ আতংকে বসবাস করছেন। একই গ্রামের মকশেদ আলীর নেতৃত্বে চিহ্নিত ভুমিদস্যুরা আবার নতুন করে সংঘটিত হচ্ছে। ঐ সকল ভূমি সন্ত্রাসীরা তাদের পূর্ব-পরিকল্পিত নিশানা বাস্তবায়ন করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। যে কারনে ভুক্তভোগী অসহায়  আদিবাসীদের মাঝে তীব্র আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। গত ২১ নভেম্বর ২০১৫ পার্শবর্তী বিলে মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে এলাকার সেরাজুল ইসলামের ছেলে জাহাঙ্গীরের(২২) নেতৃত্বে ভূমিদস্যুরা গ্রামের আদিবাসী মেয়েদের মারধর করে এবং গ্রামের রতন বিশ্বাসের বসতবাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে। এই ঘটনায় ভুগরইল খ্রিষ্টানপাড়া আদিবাসী পাহাড়ীয়া সম্প্রদায়ের লোকজনের মধ্যে তীব্র আতংক বিরাজ করছে। এই ঘটনায় ২২ নভেম্বর শাহমখদুম থানায় একটি আভিযোগ দায়ের করে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *