Sharing is caring!

ভোলাহাটে অনলাইনে জমে উঠেছে আমের বাজার

♦ভোলাহাট প্রতিনিধি

করোনায় থমথমে অবস্থায়ও আমের রাজধানীতে আম বাজারগুলোতে ভিড় ব্যবসায়ীদের। দেশের বিভিন্ন যাচ্ছে ভোলাহাটের বিভিন্ন জাতের আম। তাই খুচরা আম ক্রেতারা আম খাওয়া নিয়ে বেশ চিন্তায় ছিলেন। কিন্তু দেশের বিভিন্ন জায়গায় আম প্রেমীকদের কাছে অনলাইন পদ্ধতিতে আম পৌঁছে দেয়ার উদ্যোগ নিয়েছেন বিশ^বিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা। আম ফাউন্ডেশন ভোলাহাট আম বাজারে রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয় পড়ুয়া তারেকের সাথে কথা বলে জানা যায়, করোনা ভাইরাসে আম প্রেমীকেরা দেশের বিভিন্ন স্থানে রয়েছেন। চাহিদা থাকলেও আম খাওয়া নিয়ে চিন্তায় ছিলেন। তাই আমরা “ম্যাংগো মার্ট” অনলাইন গ্রুপের মাধ্যমে বিশ^বিদ্যালয় আরো দুইজন শিক্ষার্থী আব্দুল আহাদ ও আলিফ হোসেনকে নিয়ে অনলাইনে আম বিক্রয়ের বিষয়টি মাথায় নিই। শুরু হয় অনলাইনে গ্রাহকের কাছ থেকে অর্ডার নেয়া এবং আম পৌছে দেয়ার কাজ। বিশ^বিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা শুরু করলেন আম সুলভমূল্যে ক্রেতাদের কাছে নিরাপদে পৌঁছে দিতে। কখনো আম বাজার, আবার সরাসরি আম বাগান থেকে আম ক্রয় করে পৌঁছে দিচ্ছেন দেশের সব অঞ্চলের ক্রেতার বাড়ীতে। আয়ের বিকল্প মাধ্যম হিসেবে ভোলাহাটের ফরমালিন মুক্ত আম দেশের মানুষের কাছে প্রকৃত মূল্যে পৌঁছে দিচ্ছেন তারা। এদিকে আম ফাউন্ডেশনের কোষাধ্যক্ষ লাল দেওয়ান বলেন, অনলাইনে বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আম কেনাবেচা করায় দেশের বিভিন্ন জায়গায় বেশ সাড়া পড়েছে। শিক্ষার্থীরা করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় অনলাইনে আম বিক্রয় একটি মহৎ উদ্যোগ। বহিরাগত ব্যাপারিরা করোনার জন্য এবছর না আসলেও অনলাইনে আম বিক্রয়ের কারণে আমের বাজার মূল্য বেশ ভালো পাচ্ছেন ব্যবসায়ীরা। আম ব্যবসায়ী আনসার আলী মেম্বার জানান, অনলাইনে ছাত্ররা আম ব্যবসা করায় করোনার জন্য খুব ভালো হয়েছে। দেশের বাহির থেকে আসা আম ব্যবসায়ীরা করোনা বহনকারী হতে পারে। ফলে অনলাইন আম ব্যবসায় ছাত্রদের বেকারত্ব দূর হবে, তেমনি ক্রেতারা বাড়ীতে বসে আম খাওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন। এটা আম ক্রেতাদের জন্য একেটি বড় সুযোগ। ভোলাহাট ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ¦ মোজাম্মেল হক চুটু জানান, অনলাইন আম ব্যবসা বেশ জমে উঠেছে। এত উচ্চ শিক্ষিত ছেলেরা করোনা মোকাবেলায় একটি সুন্দর পরিকল্পনা ও পরিবেশে দেশের বিভিন্ন স্থানে হোম পৌছে দিচ্ছেন।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *