Sharing is caring!

ভোলাহাট সংবাদদাতা \ চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাটে বাড়ীতে চাকরের কাজ দেয়ার প্রলোভনে প্রতিবন্ধী এক নারীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেছে সাবেক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান বলে এলাকায় অভিযোগ উঠেছে।  এঘটনায় ধর্ষিতার ভাই বাদী হয়ে ভোলাহাট থানায় মামলা করেছে বলে জানা গেছে। থানা ও ধর্ষিতার ভাই সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার আহম্মদপুর গুচ্ছগ্রামের মৃত ছাক্কু মোমিনের মেয়ে বাক প্রতিবন্ধী দু’সন্তানের জননী (৩০)কে বাড়ীতে চাকরের কাজের নামে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করেছে একই গ্রামের মৃত মোসলেম সরদারের ছেলে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান। কথিত ধর্ষক আব্দুল হান্নান ইতিপূর্বেও গোপনে এ ধরণের একাধিক ধর্ষণের ঘটনা ঘটিয়েছে বলে এলাকাবাসীর অভিযোগে প্রকাশ। লম্পট চেয়ারম্যানের লোলুপ দৃষ্টি তার নিজের নাতনিকেও ধর্ষণ করতে দ্বিধাবোধ করেনি। সে অপরাধে সাবেক চেয়ারম্যান নিজের মেয়েদের হাতে মারধর খেয়েছিলো। চেয়ারম্যান থাকা অবস্থায় আমেনা নামের দেহব্যবসায়ীকে দিবালোকে মটরসাইকেলে নিয়ে দেদারসে ঘুরে বেড়াতেন বলে কথিত রয়েছে। দু’সন্তানের জননী ধর্ষিতা ও ধর্ষিতার ভাই সহিমুদ্দিন এ প্রতিবেদককে বলেন, আমার বোন ২ছেলে-মেয়ে নিয়ে বিধবা অবস্থায় বাড়ীতে থাকে। একদিন আব্দুল হান্নান চেয়ারম্যান তাঁর বাড়ীতে কাজের লোকের কথা বলে ৩ মাস আগে থেকে তাদের বাড়ীতে কাজ করতে থাকে। এরই মধ্যে গত ৩ দিন আগে আমার বোনকে বাড়ীতে একাই পেয়ে তাঁকে উলঙ্গ করে মুখে কাপড় গুঁজলে সে (প্রতিবন্ধী) চিৎকার দিলে তাকে চর-থাপ্পর মেরে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে বলে জানায়। পরে বিষয়টি আমি পাড়া-প্রতিবেশীকে অবহিত করি। তারা আমাকে আইনের আশ্রয় নিতে বললে থানায় আসি এবং মামলা করি। সে আরো বলে আমার বোন একজন বাক প্রতিবন্ধী হওয়া সত্বেও চেয়ারম্যানের লোলুপ দৃষ্টির শিকার হয়েছে। আমি এ জন্য আইনানুগ ভাবে এর কঠোর শাস্তির জোর দাবী জানিয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। ধর্ষণের ঘটনার বিষয়ে ধর্ষক ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নানের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ধর্ষণের ব্যাপারটি সম্পূর্ণ অ¯^ীকার করেন এবং বিষয়টি হালকা মনে ভেবে এরিয়ে যান। এ ব্যাপারে ভোলাহাট থানার অফিসার ইনচার্জ মহসীন আলী ধর্ষণের ব্যাপারটি সত্যতা শিকার করে বলেন, ভিকটিমকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন সংশোধনী ২০০৩-এর ৯ (১) ধারামতে শনিবার রাত্রি সোয়া ১১টা দিকে ভিকটিমের ভাই সহিমুদ্দিন বাদী হয়ে থানায় মামলা দিয়েছে। এর যথাযথ তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *