Sharing is caring!

ভোলাহাট প্রতিনিধি \  জেলার ভোলাহাটে ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ও সহকারি কমিশনার (ভূমি)র মাসুদুর রহমান মাসুদের হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে ২ কিশোরী। বাল্য বিয়ে পড়ানোর সহযোগিতার দায়ে দুই বর সহ ৬ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। সাজাপ্রাপ্ত দুই বর হলো- ভোলাহাট উপজেলার বাহাদুরগঞ্জ গ্রামের রহিমের ছেলে মেরাজুল(১৯) ও নওগাঁ জেলার পোরসা উপজেলার উদরিয়া করমজাই গ্রামের মেজানুর রহমানের ছেলে ফাউজুল আজিম(২৩)। এছাড়া বাল্য বিয়ে পড়ানোর কাজে সহযোগিতার দায়ে সাজাপ্রাপ্তরা হলো- খালেআলমপুর গ্রামের ঝড়–(৬০), মেয়ের চাচা মান্নান(৫৫), নওগাঁ জেলার ছেলের আত্মীয় মৃতঃ তাহেরের ছেলে মিলন(২৫) ও ভোদু(৬১)। উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা কামরুজ্জামান সরদার জানান, বুধবার রাতে বাহাদুরগঞ্জ গ্রামের রহিমের ছেলে মেরাজুল(১৯) অপ্রাপ্ত বয়সের সুরানপুর গ্রামের কালুর মেয়ে খালেদা(১৩) এর সাথে বিয়ে হওয়ার খবর পেয়ে নির্বাহী অফিসার মাসুদুর রহমান মাসুদ সরজমিন গিয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধ করেন। পরদিন বৃহস্পতিবার সকালে তারা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মেরাজুলকে ১০দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড এবং বিয়েতে সহযোগিতা করার দায়ে ছেলের পিতা ও মেয়ের পিতা-মাতাকে ১ হাজার টাকা করে অর্থদন্ড করা হয়। অপরদিকে খালেআলমপুর গ্রামের ঝড়–র ১৭ বছরের মেয়ে বৃষ্টির সাথে নওগাঁ জেলার পোরসা উপজেলার উদরিয়া করমজাই গ্রামের মেজানুর রহমানের ছেলে ফাউজুল আজিম(২৩) এর সাথে বিয়ের সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে যান ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী অফিসার। সেখান থেকে ছেলে তার আত্মীয়-স্বজদের আটক করে অফিসে নিয়ে আসে। পরে ভ্রাম্যমান আদালত ছেলেকে ১৫দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন। এছাড়া বাল্যবিয়েতে সহযোগিতার দায়ে মেয়ের পিতা খালেআলমপুর গ্রামের ঝড়–(৬০), মেয়ের চাচা মান্নান(৫৫), নওগাঁ জেলার ছেলের আত্মীয় মৃতঃ তাহেরের ছেলে মিলন(২৫) ও ভোদু(৬১)কে পৃথক ভাবে ৭দিনের বিনাশ্রম করাদন্ড প্রদান করেন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মাসুদুর রহমান মাসুদ।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *