Sharing is caring!

ভোলাহাট প্রতিনিধি \ চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাটে বিয়ের দাবীতে প্রেমীকের বাড়ীতে প্রেমীকা অনশন করেছে। উপজেলার বজরাটেক স্কুলপাড়া গ্রামের সবু আলীর ছেলে প্রেমিক রনি ওরফে রানা (২৪) প্রেমিকা একই উপজেলার খলিসাকুড়ি গ্রামের মোস্তফা শেখের মেয়ে সবজা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণীতে পড়ুয়া মহসিনার সাথে দীর্ঘ ৪ বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক চলছিল। প্রেমীকা মহসিনার অভিযোগ, সে প্রাপ্ত বয়স্ক না হওয়ায় প্রেমীক প্রাপ্ত বয়স হলে বিয়ে করবে বলে তার সাথে দৈহিক সর্ম্পক চালিয়ে যেতে থাকে। সে তার বাড়ীসহ তার আত্মীয়দের বাড়ী পর্যন্ত যাতায়াত করতে থাকে। প্রেমীক রনি ঢাকায় একটি গার্মেনসে চাকুরী করে। প্রেমীক রনি তাকে বাদ দিয়ে অন্যত্র গোপনে বিয়ে ঠিক করলে রবিবার রানুকে ফোন করে বিয়ের বিষয় জানতে চায় এবং ঢাকা থেকে বাড়ী আসছে কি-না জানতে চাইলে বাড়ী আসবে না বলে জানায় রনি। পরদিন সোমবার স্কুলে গিয়ে মানষিক অবস্থা খারাপ বলে স্কুল থেকে ছুটি নিয়ে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বাড়ী যায় মহসিনা। এমন সময় স্কুল থেকে বের হয়েই স্কুল মাঠে হাঁটতে দেখে প্রেমীক রনিকে। তার সন্দেহ হলে তাকে কিছু না বলে বাড়ী চলে যায়। বাড়ীতে গিয়ে সে শুনতে পায় একই উপজেলার মুন্সিগঞ্জ হঠাৎপাড়া মজিবুরের মেয়ের সাথে রাত ৯টার দিকে প্রেমীক রনির বিয়ে হবে। নিজেকে আর ধরে রাখতে না পেরে ছুটে যায় স্কুলপাড়া প্রেমীক রনির বাড়ীতে। সেখানে বিকেল ৫ টার দিকে রনির মায়ের হাত ধরে প্রেমীক রনিকে ভিক্ষা চায়। দীর্ঘ ৪ বছরের প্রেম তাকে বিয়ে করার প্রতিশ্রƒতি দিয়েছে রনি এমন অনেক কথা বলে মন গলানোর চেষ্টা করলে মহসিনাকে বেধড়ক মারধর করে বাড়ী থেকে বের করে দেয় রনির মা ও অন্যরা। এসময় কিলঘুষি মারতে থাকলে উপস্থিত প্রেমীক ও তার বাবা নীরব থাকে। এঘটনায় স্থানীয় লোকজন রনির বাড়ীতে ভীড় জমাতে শুরু করলে প্রেমীক, তার মা-বাবা বাড়ীতে তালা দিয়ে অন্যত্র পালিয়ে যায়। রনির পরিবার বাড়ী ছেড়ে পালিয়ে গেলেও সে ঐ বাড়ীতেই অবস্থান করে। রাত সাড়ে ৭টার দিকে স্থানীয় লোকজন মেয়েকে বুঝিয়ে তার বাড়ীতে নিয়ে গিয়ে স্থানীয় ¯^াস্থ্য কমপে¬ক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে। এ ব্যাপারে প্রেমীক রানার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তার ফোন বন্ধ পাওয়ায় য়ায়। প্রেমীক রানার অন্যত্র বিয়ে করার ব্যাপারে সত্যতা পাওয়ায় যায়। এ ব্যাপারে প্রেমীক রানার মার সাথে যোগাযোগ করা হলে আসল ঘটনা এড়িয়ে গিয়ে তার ছেলের প্রেমীকাই তাকে মেরেছে বরে অভিযোগ করেন। তবে প্রেমীক রনি সাংবাদিকদের সাথে কথা বলতে রাজি হননি। এ ঘটনায় স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ জানায়, মেয়ে তার প্রেমিককে বিয়ে করতে না পেলে আত্মহত্যা করবে বলে নানা অসংলগ্ন কথাবার্তা বলছে। ব্যাপারটি শেষ পর্যন্ত কি হবে এ নিয়ে এলাকায় বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় কোন মামলা বা অভিযোগ হয়েছে কি-না তা জানা যায়নি।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *