Sharing is caring!

ভোলাহাট প্রতিনিধি \ আশেয়া সিদ্দিকা জলি(১৯); ভোলাহাট উপজেলার গোপিনাথপুর গ্রামের কাঠ মিস্ত্রী জালাল উদ্দীনের মেয়ে। দরিদ্র পরিবারের কুড়ে ঘরে ভাল্ব নষ্ট হয়ে কষ্টের মধ্যে রোগাক্রান্ত হয়ে বিছানায় কাতড়াচ্ছে। অর্থের অভাবে ভালো কোথা চিকিৎসা নিতে পারেন না। অসচ্ছল পরিবারের জন্মগ্রহণ আর আর্থিক সংকলনের কারণে চিকিৎসা না করতে পেরে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন এই গৃহবধু জলি। দরিদ্র পরিবারের কারণে কিশোরী বয়সে জলির বিয়ে দিয়ে দেয় তাঁর বাবা। বিয়ের পরপর জলির দাম্পতি জীবনে আসে এক কন্যা সন্তান। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য, স্বামীর অবহেলা সে বর্তমানে বাবার বাড়িতে থাকেন। দরিদ্র বাবার সংসারে মেয়ে জটিল রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়ায় দুশ্চিন্তা দিন কাটাচ্ছেন কাঠমিস্ত্রী বাবা জালাল উদ্দিন। এমনিতেই নুন আনতে পান্তা ফুরায় তার উপর মেয়ে এই জটিল রোগ। এবাপারে বাবা জালাল উদ্দিন বলেন, অভাবের সংসারে চিকিৎসকের কাছে যেতে না পেরে গ্রামের কবিরাজের কাছে ঝাড়ফুঁক দিয়ে রোগ সারানোর চলে চেষ্টা করছি। কিন্তু অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বেশ কিছু দিন ধরেই  চিকিৎসা। সেখানেও চিকিৎসার উন্নতি হয়নি জলির। ধীরে ধীরে শারীরিক ভাবে অচল হয়ে পড়েন। টাকা পয়সার অভাবে উন্নত চিকিৎসা নিতে বাইরে কোথাও নিয়ে যেতে পারচ্ছি না। তিনি আরো বলেন, অসুস্থ মার আদর থেকে বঞ্চিত ছোট শিশু নাতনীটি দিনদিন মুখের হাসি ফুরিয়ে আসে। কিন্তু নিয়তির কঠিন পরীক্ষার লড়াই করতে শিশুটির মুখে হাসি ধরে রাখতে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেলে কলেজ হাসপাতাল যায়। সেখানে চিকিৎসক বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেন। পরীক্ষার রির্পোট দেখে চিকিৎসক জানান, জলির ভাল্ব নষ্ট হয়ে গেছে। তাকে বাঁচাতে হলে দেশের বাইরে নিয়ে গিয়ে উন্নত চিকিৎসা করাতে হবে। আর উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রয়োজন অনেক অর্থের প্রয়োজন। এমন কথা শুনে মিস্ত্রী বাবার মাথায় যেন আকাশ ভেঙ্গে  পড়ে। তিনি বলেন,  এতো টাকা  জোগার করে দেশের বাইরে গিয়ে চিকিৎসা নেয়ার শক্তি নেই। মেয়ে উন্নত চিকিৎসা ও ছোট্ট কচি শিশুটি মুখের দিকে তাকিয়ে সুশীল সমাজের বিত্তবান ব্যাক্তিদের কাছে আর্থিক সহায়তা চেয়েছেন এই কাঠমিস্ত্রী জালাল উদ্দিন। সাহায্য ও সহায়তা পাঠাতে তাঁর বিকাশ নং- ০১৭৪৪-৬৮৯৬৩৪ ও রূপলী ব্যাংক ভোলাহাট শাখার এ্যাকাউন্ড নং-৩৫৫৮০১০০১১০৫৪ এই নম্বরে পাঠানো জন্য অনুরোধ করেছেন মৃত্যু পথযাত্রী জলি ও তারা বাবা ।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *