Sharing is caring!

ভোলাহাটে মৌলিক স্বাক্ষরতা প্রকল্পে উপকৃত নারীরা

♦ ভোলাহাট প্রতিনিধি

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়াধীন ও উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর আওতাধীন ভোলাহাটে মৌলিক স্বাক্ষরতা প্রকল্পে সবচেয়ে বেশী উপকৃত হচ্ছেন নারীরা। চেতনা মানবিক উন্নয়ন সংস্থা’র বাস্তবায়নে ২০১৮ সালের ডিসেম্বর থেকে শুরু হয়েছে। ৬ মাসব্যাপী এই প্রকল্পে উপজেলার মোট ১৮ হাজার নারী এবং পুরুষ মৌলিক স্বাক্ষরতায় অংশ নেয়। সরকারের এমন উদ্যোগের প্রসংশা করেছেন বংস্ক শিক্ষার্থীরা। এদিকে এই প্রকল্পের আওতায় কাজের সংস্থান হয়েছে ৬’শ জন বেকার যুবক-যবতীর। এর মধ্যে ৩’শ টি পুরুষ কেন্দ্রের জন্য ৩’শ জন পুরুষ ও ৩’শ টি নারী কেন্দ্রের জন্য ৩’শ নারী। এলাকার মানুষের মাঝ থেকে নিরক্ষরতা দূর করে স্বাক্ষরতার হার বৃদ্ধিতে সহায়ত হিসেবে এই প্রকল্পের কারণে এলাকার অনেক মানুষ লেখাপাড়ার সুযোগ পাচ্ছে বলে জনপ্রতিনিধিরাও সরকারের কাছে কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানিয়েছেন। এব্যাপারে ভোলাহাট উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রেশমাতুল আরস বলেন, উপজেলায় মৌলিক স্বাক্ষরতা প্রকল্পটি ভালভাবেই বাস্তবায়িত হচ্ছে। গোহালবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের বলেন, গত মাসের ২৩ তারিখে স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক চিত্রলেখা ড. নাজনিন এবং ভোলাহাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহমুদা পারভীন উপজেলার বেশ কয়েকটি কেন্দ্র পরিদর্শন করেন এবং সন্তোষজনক উপস্থিতি দেখা যায়। তবে, পুরুষের চেয়ে নারীদের উপস্থিতি বেশ ভাল। এবিষয়ে উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরো ভোলাহাট উপজেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রোগ্রাম অফিসার সালাউদ্দিন জানান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহমুদা পারভীন পর্যায়ক্রমে কেন্দ্রগুলো পরিদর্শন করছেন। ভোলাহাট সদর এবং গোহালবাড়ি ইউনিয়নের কয়েকটি কেন্দ্র সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, নারী শিক্ষার্থীরা অনেক আগ্রহী ও আনন্দিত। নারী শিক্ষার্থী তাজকেরা, আমেনা, আকলিমাদের অনুভ‚তি জানতে চাইলে বলেন, আমরা এই স্কুলে এসে স্বাক্ষর করা শিখতে পেরে খুব আনন্দিত। তবে, ভবিষ্যৎ যেন এ ধরণের শিক্ষা কার্যক্রম অব্যহত থাকে সেটাই দাবি শিক্ষার্থী ও ভোলাহাটবাসীর।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *