Sharing is caring!

ভোলাহাট প্রতিনিধি \ জেলার ভোলাহাটে এক স্কুল ছাত্রকে শ্বাষরোধ করে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। হত্যার অভিযোগে সন্দেজনকভাবে ২জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। স্বজন ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার জামবাড়ীয়া ইউনিয়নের জামবাড়ীয়া ভাটাপাড়া গ্রামের ইব্রাহীম আলীর ছেলে বড়গাছী সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেনীর ছাত্র রাজিব (১৩)কে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। সে প্রতিদিনের মত গত ২২ ফেব্রুয়ারী বাবার কাজে সাহায্য করে বড়গাছী রোমান্সের ইটভাটা সংলগ্ন ইক্ষুর গুড় তৈরীর মিল থেকে রাত সাড়ে ৮টার দিকে সাইকেল যোগে বাড়ী ফিরছিল। কিন্তু রাজিব রাতে বাড়ী ফিরে না আসায় বাবা-মাসহ স্বজনেরা বিভিন্ন জায়গায় খোঁজ করতে থাকে। কোথাও সন্ধান না মেলায় ২৩ ফেব্রæয়ারী রাজিবের বাবা ভোলাহাট থানায় জিডি করতে আসে। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তার ছেলের ব্যবহারকৃত সাইকেলটি জামবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের পশ্চিমে বেঁকী বাগানের দাঁড়ার সারফুদ্দিন হাজীর আমবাগানে সন্ধান পেয়ে এলাকাবাসি তাকে খবর দেয়। স্থানীয়রা সাইকেল দেখে সন্দেহ হলে রাজিবের খোঁজ করতে থাকে। আশপাশে রাজিবের খোঁজ করতে গিয়ে পার্শ্ববর্তী গম ক্ষেতে দুপুর পৌণে ১টার দিকে লাশ দেখতে পায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে। পুলিশের এস.আই রবিউল ইসলাম জানান, লাশের সুরৎহাল রির্পোটে শ্বাস রোধ করে হত্যা করা হয়েছে এমন আলামত পাওয়া গেছে। এদিকে জামবাড়ীয়া ইউপি সদস্য আব্দুস সামাদ বলেন, রাজিবের বোনের সাথে একই গ্রামে ফোকদারিসের ছেলে রউফের(২৫) সাথে দেড় বছর পূর্বে বিয়ে হয়েছে। রউফ যৌতুকের দাবীতে বিয়ের পরপর নানা ভাবে নির্যাতন করে আসছিলো তার বোনকে। তাদের ব্যাপারে বহু বার সালিসও হয়েছে। ক’দিন পূর্বে রাজিবের বোনকে স্বামীর বাড়ী থেকে নিয়ে যায় তার মা। গত ৩দিন পূর্বে রউফ দেখে নেয়ার হুমকি দেয় রাজিবের পরিবারকে। এ সন্দেহে পুলিশ রউফ ও তার মা মাবিয়া বেগমকে গ্রেফতার করেছে। রউফের বাবা ফোকদারিস পালিয়ে যাওয়ায় গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। এ ব্যাপারে এলাকার একাধীক ব্যক্তি রউফ ও তার পরিবার এ হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত বলে অভিযোগ করেন। এব্যাপারে ভোলাহাট থানার অফিসার ইনচার্জ (ভারপ্রাপ্ত) পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) শামীম হোসেন জানান, হত্যা কান্ডের সাথে জড়িত সন্দেহে ২জনকে গ্রেফতার করে থানা হাজতে রাখা হয়েছে। এঘটনায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *