Sharing is caring!

স্টাফ রিপোর্টার \ দক্ষিন আফ্রিকার মালিতে ভয়বহ বোমা বিষ্ফোরণে নিহত চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার ঘোড়াপাখিয়া ইউনিয়নের ধুমিহায়াতপুর ঘাইসাপাড়ার সেনা সদস্য জামাল উদ্দীনের বাড়িতে চলছে শোকের মাতম। বাবার বাড়ি ফেরার অপেক্ষায় নিহত জামালের একমাত্র ছেলে রিয়াদ আলী শিমুল। মাত্র ২দিন আগে কথা বলায় রিয়াদ জানে তার বাবা সামনের রমজান মাসে তার জন্য অনেক খেলনা নিয়ে আসবে। ৫ বছর বয়সী শিশু রিয়াদ জানেইনা তার বাবা সন্ত্রাসীদের ছোঁড়া বোমা বিষ্ফোরণে মুত্যুবরণ করেছেন। সকলের কান্না দেখে সে ফ্যাল ফ্যাল চোখে তাকিয়ে দেখছেন, আত্মীয় স্বজনদের কান্না দেখে কেদেও ফেলছেন। কিন্তু আসল কান্নার বিষয়টি সে ভালভাবে বুঝতে পারছে না। বার বার তার বাবার বাড়ি আসার কথায় বলে যাচ্ছে। জামালের স্ত্রী ফাহিমা আক্তারকে স্থানীয়রা ও স্বজনরা শান্তনা দিচ্ছেন। এঘটনায়  আশেপাশের এলাকার বাতাস ভারী হয়ে উঠেছে। ২ দিন আগে কথা বলেছেন জামাল পরিবারের সাথে। আগামী রমজানে বাড়ি ফেরার কথা বললেও ছেলে আর বাড়ি ফিরলনা বলে মা ছেলের ছবি নিয়ে বার বার প্রলাপ বকছেন। রাতেই জামাল উদ্দীনের মৃত্যু সংবাদ তার পিতা মেসের আলীর কাছে এসে পৌছালে পুরো এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। স্বজন ও প্রতিবেশিদের কান্নায় ভারি হয়ে যায় এলাকা আকাশ বাতাস। মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান জামাল উদ্দীন ২০০৩ সালে এস.এস.সি পাস করার পর ২০০৫ সালে সেনাবাহিনীতে যোগদান করেন। মাত্র ১০ মাস আগে শান্তিরক্ষী মিশনে যোগ দিয়ে দক্ষিন আফ্রিকার মালিতে যান। ২ ভাই ১ বোনের মধ্যে জামাল উদ্দীন মেজ। বিবাহিত জামাল উদ্দীনের ইমরান আলী রিহাদ নামের সাড়ে ৫ বছরের এক ছেলে সন্তান রয়েছে। স্বামীর মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর জামালের স্ত্রী ফাহিমা আক্তার বারবার জ্ঞান হারিয়ে ফেলছেন। এদিকে, স্থানীয়রা জানান, জামাল আমাদের গ্রামের ছেলে এজন্য আমরা গর্বিত। গ্রামের গণ্যমান্য ব্যক্তিদের দাবী দ্রুত লাশ ফেরত দেয়ার। সে সাথে পরিবারের সুদৃষ্টি দেয়ার দাবীও জানিয়েছেন তারা।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *