Sharing is caring!

Naogaon pic 29.11.2015নওগাঁ সংবাদদাতা \ নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার কাশিমপুর ইউপির মঙ্গলপাড়া গ্রামের মালয়েশিয়ায় কর্মরত অবস্থায় খুন হওয়া আরিফ (২৪) এর মরদেহ ১৫ দিন পর গত রবিবার গ্রামের বাড়িতে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে। নিহত আরিফের জানাযায় আত্মীয়-¯^জনসহ এলাকার হাজারও মানুষ শরিক হন। তার মরদেহ গত শনিবার রাত ১১টায় গ্রামের বাড়িতে পৌঁছলে এক নজর দেখার জন্য সকাল থেকেই এলাকার নারী-পুরুষ ভিড় জমায়। আরিফের খুন হওয়ার খবর শোনার পর থেকে তার পরিবারের শেষ আশাটুকু ছিল যে কোন ব্যবস্থাপনায় ছেলের লাশটি যেন দেশে পৌঁছে। লাশ পেয়ে শোকে পাথরপ্রায় পিতা-মাতা, ভাই-বোন কিছুটা হলেও শেষ মূহর্তে সান্তনা পেয়ে বর্তমান সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়েছে। জানা গেছে উপজেলার মঙ্গলপাড়া গ্রামের আব্দুল হামিদের ছেলে আরিফ (২৪) পিতা-মাতার অভাবের সংসারে একটু ¯^চ্ছলতা আনার জন্য বাবার কিছু জমি বিক্রি ও নগদ টাকা ধারদেনা করে প্রায় দুই বছর আগে ৪ লক্ষ ৩০ হাজার টাকার বিনিময়ে মালয়েশিয়ায় যায়। যাওয়ার পর থেকে ভিসার চুক্তিমত একটি ফার্নিসার কারখানায় রং মিস্ত্রির সহকারি হিসেবে কাজ করে। দুই ভাই এক বোনের মধ্যে সে ছিল মেজ। মালয়েশিয়ায় তার প্রতিবেশি চাচা আশাদুল ইসলাম (৪০) পার্শ্বে অন্য একটি কারখানায় কাজ করতেন এবং দু’ জনই ভিন্ন ভিন্ন জায়গায় বসবাস করতেন। হঠাৎ করেই ১৫নভেম্বর রবিবার ভোরে আশাদুল মালয়েশিয়া থেকে তার স্ত্রী রুবিয়াকে ফোন করে জানায় আরিফ যে বাসায় থাকতো রাতে কে বা কারা তাকে জবাই করে হত্যা করেছে। এই খবর ছড়িয়ে পড়লে মঙ্গলপাড়া গ্রামে শোকের ছাঁয়া নেমে আসে। গত ১৫ দিন পর শনিবার রাত ১১টায় আরিফের মরদেহ গ্রামের বাড়িতে পৌঁছে। গতকাল রবিবার বাদ যোহর জানাজা শেষে পারিবারিক গোরস্থানে তার দাফন করা হয়। নিহত আরিফের চাচা আনোয়ার, মাসুদ রানা জানান ১৬ নভেম্বর মালয়েশিয়া থেকে একটি ফোনে জানানো হয় আরিফের লাশ নেয়ার জন্য পিতা-মাতার পক্ষ থেকে একটি লিখিত আবেদন করতে হবে। সে মোতাবেক ১৮ নভেম্বর আরিফ যে কোম্পানিতে কাজ করতো সেই বরাবরে লাশ ফেরত চেয়ে দরখাস্ত করলে ২৮ নভেম্বর সন্ধ্যায় ঢাকার শাহজালাল আর্ন্তজাতিক বিমান বন্দরে তার লাশ পৌঁছে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *