Sharing is caring!

যোগাযোগের ধারণা পাল্টে দেবে বিলাসবহুল টুরিস্ট ট্রেন

একটি দেশের যোগাযোগ খাত যত বেশি উন্নত সেই দেশের আর্থিক উন্নয়ন, জনসাধারণের জীবনমান  তত দ্রুত  উন্নত করা সম্ভব। এই লক্ষ্যে ২০০৯ সাল থেকে দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থায় আমূল পরিবর্তন আনা হয়েছে।

বহু প্রতীক্ষিত দোহাজারী-গুনদুম রেলপথ নির্মাণ প্রকল্পের কাজ চলছে পুরোদমে। এটি বাস্তবায়ন হলে ২০২০ সালে সারা দেশের সঙ্গে পর্যটন শহর কক্সবাজার রেল নেটওয়ার্কের মধ্যে চলে আসবে। রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘ সমুদ্র সৈকত কক্সবাজারের সঙ্গে রাজধানী ঢাকার দূরত্ব আরো কমিয়ে আনতে ঢাকা-কক্সবাজার রেলপথে বিরতিহীন ট্রেন পরিচালনার পরিকল্পনা নিয়েছে রেলওয়ে। এর মধ্যে ঢাকা-কক্সবাজার-ঢাকা রেলপথে সাধারণ ট্রেনের পাশাপাশি প্রতিদিন ঢাকা থেকে সরাসরি (ন্যুনতম কয়েকটি বিরতিযুক্ত) কয়েকটি সম্পূর্ণ এসি ট্রেন যাতায়াত করবে। এসব ট্রেনে পর্যটক হিসেবে চলাচলরত যাত্রীদের সুবিধার্থে ট্যুরিস্ট কার সংযোজন করা হবে। এসব ট্যুরিস্ট কারে সুপরিসর বার্থ সার্ভিস ছাড়াও রেলের নিজস্ব ক্যাটারিং সার্ভিস, সার্বক্ষণিক গার্ড, ওয়েটার সুবিধা ও যাত্রাপথে প্রাকৃতিক দৃশ্য দেখার ব্যবস্থা থাকবে।

পূর্বাঞ্চলে সবচেয়ে জনপ্রিয় ট্রেন সুবর্ণ ও সোনার বাংলা এক্সপ্রেস। ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথে বিরতিহীন এ দুটি ট্রেনের প্রায় শতভাগ আসনের টিকিট বিক্রি হয়ে যায়। মাত্র ৫ ঘণ্টা ১০ মিনিটে ঢাকা-চট্টগ্রাম-ঢাকা রেলপথে যাত্রী পরিবহনের কারণে ট্রেন দুটির জনপ্রিয়তা দিন দিন বাড়ছে। ঢাকা-কক্সবাজার-ঢাকা রেলপথ চালু হলে এর চেয়েও উন্নতমানের বিলাসবহুল আন্ত:নগর ট্রেন পরিচালনার পরিকল্পনার অংশ হিসেবে চালু হয়েছে এই প্রকল্প। প্রকল্পটি উদ্বোধনের দিন থেকেই এ রুটে বিলাসবহুল পর্যটন ট্রেন পরিচালনার পরিকল্পনা নিয়েছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। এজন্য ১২ সেট অত্যাধুনিক ট্যুরিস্ট কার আমদানির একটি প্রকল্প হাতে নিয়েছে সংস্থাটি।

রেলপথটির নির্মাণকাজ শেষ করার আগেই কক্সবাজার পর্যন্ত চাহিদা অনুযায়ী শতভাগ ট্রেন পরিচালনার চিন্তাভাবনা করছে রেলওয়ে। পর্যটন শহর কক্সবাজার ভ্রমণে আসা যাত্রীদের কাছে রেলের নতুন প্রকল্পটি আকর্ষণীয় হবে বলে মনে করছেন রেলওয়ে সংশ্লিষ্টরা। হেমন্তের শীতের আগমনী হিমেল হওয়ার সাথে দেশে বইছে নির্বাচনের উত্তেজনাপূর্ণ গরম হাওয়া। দেশের একশ্রেণীর মানুষ বলেছিলেন যে নির্বাচনের ডামাডোলে ক্ষতিগ্রস্ত হবে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন প্রবাহ। থমকে যাবে দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রা। কিন্তু এ ধরণের গুজবকে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে দেশের অর্থনৈতিক ও উন্নয়নের অগ্রযাত্রা।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *