Sharing is caring!

গোমস্তাপুর প্রতিনিধি \ চাঁপাইনবাবগঞ্জের রহনপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র মোস্তাফিজুর রহমান জেম এর বিরুদ্ধে এক নারীর শীলনতাহানীর অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনার বিবরনে ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, রহনপুর পৌর এলাকার ষ্টেশন হটাৎপাড়া গ্রামের চাদনী বেগমের বিয়ের পরে স্বামীর সাথে মনো মালিন্যের কারনে তার ফুপু শরিফার বাড়িতে অবস্থান করে। এই সুযোগে মোস্তাফিজুর রহমান জেম চাদনীকে বিভিন্ন সময় কুপ্রস্তাব দেয় এবং অর্থের লোভ দেখিয়ে শারীরিক সর্ম্পকের চেষ্টা করে। গত ৩ মে তার ফুপু গোমস্তাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি থাকা অবস্থায় প্যানেল মেয়র মোস্তাফিজুর রহমান জেম পরিবারের লোকজন বাড়িতে না থাকার সুবাদে রাতে শরীফার ঘরে প্রবেশ করে তার ভাতিজি চাদনীকে জোর পূর্বক ধর্ষনের চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে তার পরনের কাপড় ছিড়ে ফেললে চাদনী চিৎকার করলে ধারলো অস্ত্র দিয়ে জানে মেরে ফেলার ভয় দেখায়। আবারো চাদনীর উপর নির্যাতন শুরু হলে সে আত্মরক্ষাতে বাচাও বাচাও বলে চিৎকার শুরু করলে গ্রামবাসী ছুটে আসে এবং জেমকে হাতে  হাতে নাতে ধরে ফেললে তাদের ধারালো অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে পালিয়ে যায়। ঘটনার পরের দিনে ৪ মে চাদনী মামলা করতে গেলে গোমস্তাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মামলা না নিয়ে বিজ্ঞ আদালতে মামলা করার পরামর্শ দেন। পরিপেক্ষিতে গত ৬ মে চাঁপাইনবাবগঞ্জ বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুন্যালে (১) মামলা দায়ের করে। মামলা নং- ১২৩। বিজ্ঞ আদালত মামলাটি গোমস্তাপুর থানায় তদন্তের জন্য প্রেরন করে। এ ব্যাপরে গোমস্তাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ খন্দকার গোলাম মোর্ত্তজা জানান, বিষটির অধিকতর তদন্ত চলছে। কিন্তু বাদী চাদনী বেগম অভিযোগ করছে আসামী দ্বারা প্রভাবিত হয়ে পুলিশ মামলা তদন্ত করছে না। এদিকে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য আসামী পক্ষ বাদীকে বিভিন্ন ভাবে ভয়ভীতি প্রদান করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। তাই বাদী সুবিচারের জন্য প্রশাসনের উদ্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *