Sharing is caring!

ন্যায় বিচারের আশা পরিবারের

রাজশাহীর শিক্ষানবীশ আইনজীবি শাহেন শাহ খুন

মামলার বিচার শুরু

♦ স্টাফ রিপোর্টার

মাদক ব্যবসার প্রতিবাদ করায় সন্ত্রাসী হামলায় রাজশাহীতে নিহত শিক্ষানবীশ আইনজীবি শাহেন শাহ (২৮) হত্যার বিচার কাজ শুরু হয়েছে। রাজশাহী মহানগর বিজ্ঞ দায়রা জজ আদালতে মামলার রাষ্ট্রপক্ষেও যুক্তিতর্ক হওযার জন্য মামলা প্রস্তুত হয়েছে। মামলার বাদী নিহতের ভাই নাহিদ আক্তার নাহান জানান, ২০১৩ সালে ২৯ অক্টোবর নগরির গুড়িপারা এলাকায় মাদক ব্যবসায়ীদের সশস্ত্র হামলাই নিহত হন মৃত মোয়াজ্জেম হোসেনের ছেলে শাহেন শাহ। এই ঘটনায় নিহতের নগরির রাজপাড়া থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলায় রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের তৎকালীন ১নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মনসুর রহমানসহ এজাহার নামীয় আসামী করা হয় ২৫ জনকে। অজ্ঞাতনামা আসামী ছিলেন আরও ২৫-৩০ জন। মামলার অভিযোগে বাদি উল্লেখ করেন, ১নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মনসুর রহমানের ভাতিজা আব্দুল মোমেনের সঙ্গে একই এলাকায় নির্বাচনের মনসুরের প্রতিদ্ব›দ্বী র্প্রাথী রজব আলী ছোট ভাই শাহেন শাহর দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিলো। ২০১৩ সালের রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন রজব আলী কাউন্সিলর পদে নির্বাচনে তাদের নির্বাচনে অংশ নিলে তাদের মধ্যে বিরোধ বাড়ে। নির্বাচনে জিতলে হত্যার হুমকি দিয়েছিলেন প্রকাশ্যেই। নির্বাচনের পর থেকে মোমেন এলাকার মাদক বাবস্যা চালিয়ে যাবার চেষ্টা চালান।কিন্তু তাতে বাধা দেন শাহেন শাহ। এ নিয়ে তাদের মধ্যে বাগবিদন্দ হয় এর কিছুক্ষণ পরই মোমেনের নেতৃত্তে¡ ২০-২৫ জনের একটি দল শাহেন শাহকে মারার জন্য রজব আলির চেম্বারে হামলা চালিয়ে ভাঙ্গচুর করে।এ সময় সেখানে অবস্থানরত ম্যানেজার রবিউল ইসলাম ও নিজাম উদ্দিনকে তারা ধারালো অস্ত্র দিয়ে ক্ুঁপিয়ে জখম করে। হামলা হয় তাদের ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান, বাসাবাড়ি ও রাজনৈতিক চেম্বারেও। যাবার সময় প্রকাশ্যে দিবালকের হত্যার হুমকি দিয়ে যায়। ওই দিনই দুপুরে মোটর সাইকেলযোগে গুড়িপারা পোড়াপারা এলাকায় চাচার বাড়িতে যাচ্ছিলেন শাহেন শাহ। এসময় তার সাথে ছিলেন বন্ধু শাহীন। সাকিনের ক্লাব মোড়ে পৌঁছালে মনসুর ও তার লোকজন তাদের পথরোধ করে। পরে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে মারাতœক জখম হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পরে, তাকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মামলার সাক্ষ গ্রহণ শুরু হয়ার পর থেকে বাদি পক্ষের পরিবারকে হামলার ভয় ভিতি দেখিয়ে আসছে আসামী পক্ষরা সব কিছুকে উপেক্ষা করে মামলার বাদি নাহিদ আক্তার নাহান বলেন মাদক ব্যাবসার প্রতিবাদ করায় তার ভাইকে প্রকাশ্য দিবালকে খুন করা হয়েছে। এই ঘটনায় জড়িত প্রত্যেকের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করেছেন নিহত শিক্ষানবীশ আইনজীবি শাহেন শাহ এর পরিবার।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *