Sharing is caring!

রাজশাহী সংবাদদাতা \ রাজশাহীর গোদাগাড়ী থেকে পাচার হওয়া তিন কিশোরীকে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার ডাইকিনি গ্রামে রজব আলী ওরফে মজনু মিয়ার বাড়ি থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঘটনার সাথে জড়িত এক পাচারকারীকে আটক করেছে পুলিশ। এসময় ঘটনার সাথে জড়িত আখতারী বেগম (৫০) নামের এক পাচারকারীকে আটক করা হয়। গত বৃহস্পতিবার পুলিশ গোদাগাড়ী থানা পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে কিশোরীদের উদ্ধার করে। শনিবার দুপুরে রাজশাহী পুলিশ সুপার কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সামনে পাচারকারীসহ তিন কিশোরীকে হাজির করা হয়। উদ্ধার হওয়া তিন কিশোরীর বাড়ি রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলায়। এছাড়া পাচারকারী আখতারী বেগম একই উপজেলার বংপুর গ্রামের আফসার আলী আকুর স্ত্রী। পুলিশ জানায়, আখতারী বেগম ৩ কিশোরীকে মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে ভালো বেতনে চাকরি দেওয়ার আশ্বাস দেন। পরে ১৮ মে গোপনে তাদের তিনজনকে রাজশাহী থেকে বাসে করে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উদ্দেশে পাঠনো হয়। কিন্তু তারা ভুল করে গাবতলী বাস টার্মিনালে নামে। এরপর তারা আখতারী বেগমের সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগ করলে তাদের গাজীপুর যেতে বলেন। কিন্তু তাদের কাছে টাকা না থানায় একজন ছাত্রীর কানের স্বর্ণের দুল বিক্রি করে গাজীপুরের কালিয়াকৈর ডাইকিনি গ্রামের রজব আলী ওরফে মজনুর বাড়িতে উঠেন। ৫ জুন তাদের নন্দন পার্কে নিয়ে গিয়ে জনৈক জীবন, লতিফ ওরফে কাজেম ও রমজানসহ আরও কয়েকজনের সঙ্গে দেশের বাইরে পাঠিয়ে দেওয়া হবে বলে প্রতিশ্রæতি দেন আখতারী বেগম। কিন্তু ওই দিনই পুলিশ তাদের উদ্ধার করে। রাজশাহীর পুলিশ সুপার জানান, ঘটনার ভিকটিমের পরিবারের লোকজন বিষয়টি গোদাগাড়ী মডেল থানা পুলিশকে অবহিত করেন। পরে গাজীপুরের কালিয়াকৈর ডাইকিনি গ্রামের রজব আলীর বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তিন কিশোরীকে উদ্ধার করে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *