Sharing is caring!

প্রেস বিজ্ঞপ্তি \ রাজশাহী শাহ মখদুম বিমানবন্দরকে ধূমপানমুক্ত করতে উদ্যোগী হয়ে বিমানবন্ধর এলাকাকে ধুমপানমুক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। শুক্রবার বিমানবন্দরের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোঃ সেতাফুর রহমান বন্দরকে ধূমপানমুক্ত করতে টার্মিনালের ভেতরে তামাকপণ্য বিক্রি নিষিদ্ধ করেন। বন্দরের লাউড স্পিকার থেকে টার্মিনালের ভেতরে যাত্রীদের ধূমপান না করার আহবান জানানো হয়। টার্মিনালের সর্বত্র সতর্কীকরণ নোটিশ স্থাপন করা হয়েছে। এদিকে, এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছে স্থানীয় উন্নয়ন সংগঠন এ্যাসোসিয়েশন ফর কম্যুনিটি ডেভেলপমেন্ট-এসিডির নির্বাহী পরিচালক সালীমা সারোয়ার ও তামাক বিরোধী মিডিয়া জোট। বিভিন্ন গণমাধ্যমে রাজশাহীর শাহ মখদুম বিমানবন্দরের অভ্যান্তরে ধূমপানের বিষয় নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশিত হলে বিষয়টি বন্দর কর্তৃপক্ষের নজরে আসে। তাঁরা বিমান বন্দরকে ধূমপানমুক্ত করতে সকাল থেকেই বিভিন্ন উদ্যোগ নেন। বন্দর কর্তৃপক্ষ আজ সকাল থেকে বন্দরের অভ্যন্তরীন স্ন্যাক্সের দোকানে সিগারেট বিক্রি বন্ধের নির্দেশ প্রদানের পাশাপাশি  কিছুক্ষণ পরপর যাত্রী লাউঞ্জে অপেক্ষমান যাত্রী-দর্শনার্থীদের উদ্দেশ্যে মাইকে ধূমপান না করার জন্য নির্দেশনা প্রদান করেন। তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন অনুসারে বিমানবন্দর ধূমপানমুক্ত এলাকা হলেও এতোদিন অজ্ঞাত কারণ বশত: বিষয়টি কেউ খেয়াল করেনি। তবে বর্তমানে বিমানবন্দরকে ধূমপানমুক্ত ঘোষনা, যথাযথ সাইনেজ প্রদর্শন করাসহ বন্দরের অভ্যান্তরে সিগারেট প্রাপ্তি বন্ধ করায় যাত্রী সাধারন সন্তোষ প্রকাশ করেন। এ প্রসঙ্গে এসিডির নির্বাহী পরিচালক বলেন, স্ব স্ব কর্তৃপক্ষের সক্রীয়তার মধ্য দিয়েই পরোক্ষ ধূমপনের ক্ষতির প্রভাব কমানো সম্ভব। আমরা আশা করবো এই উদ্যোগটি অব্যাহত রাখার মধ্য দিয়ে নারী শিশু সহ অধূমপায়ীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়টি বন্দর কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করবেন।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *