Sharing is caring!

স্টাফ রিপোর্টার, শিবগঞ্জ \ চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার কানসাট গুজরঘাটে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মিলন মেলা তথা গঙ্গস্নান দশহারা মেলা রোববার অনুষ্ঠিত হয়েছে। দশহারা মেলা তথা গঙ্গাস্নান উপলক্ষে ধর্মপ্রাণ সনাতন ধর্মাবলম্বীরা ধর্মবিশ্বাসী তাদের তীথি অস্থি-বিষর্জন দিতে এবং গঙ্গাদেবী কে পাওয়ায় আসায় দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে ছুঁটে আসে কানসাটের এই পাগলা নদীর ঘাটে। বিভিন্ন জেলা থেকে আসা সনাতন ধর্মাবলম্বীরা জানান, কানসাটে গঙ্গা আশ্রম এবং শ্মশান গঙ্গাঘাটটি কানসাট বাজারে দক্ষিণ পার্শ্বে অবস্থিত। এ গঙ্গাঘাটটি দেশের সকল সনাতন ধর্মাবলীদের একটি জাতীয় তীর্থভূমি। এই তীর্থ ভূমিকে জানা-বোঝা এবং এর অতীত ইতিহাস, অরণ্নেষণ করা আমাদের অধিকতর কর্তব্য। সকল ধর্মপ্রাণ হিন্দু সম্প্রাদায়ী নেতাদের অবশ্যই উচিৎ হবে এই তীর্থটিকে গড়িয়ে তোলা। এখানে প্রতি বছর গঙ্গা দশহরা তিথী অনুযায়ী জ্যৈষ্ঠ বা আষাঢ় মাসে সর্ববৃহত্ত গঙ্গা¯স্মান অনুষ্ঠিত হয়। এরই ধারাবাহিতকায় রোববার কানসাট পাগলা নদীর তীরে আমরা বিভিন্ন জেলা থেকে এসে একত্রিত হয়েছি এবং গঙ্গাদেবীর কাছে প্রার্থনা করছি। এছাড়া নিজেদের স্বাদ্ধের মধ্যে তারা এখানে এসে আমরা অস্থি-বিষর্জন দিচ্ছি।
ধর্মপ্রাণ সনাতন ধর্মাবলম্বীরা আরো জানান, শুধু গঙ্গাদেবী প্রার্থণার্থে নয়, পাশাপাশি আমরা একের অপরে দীর্ঘদিনের সম্পর্ক কে আরো স্পন্ধন করাও এটি গুরুত্বপূর্ণ। আমরা অনেক দিন আমাদের আত্মীয়-স্বজনদের সাথে যোগাযোগ করতে পারিনি। একটি বছর পর আমরা সকল একত্রিত হতে পারায় নিজেদের কে অনেক আনন্দময় লাগছে।
এব্যাপারে কমিটির সভাপতি শ্রী সুবোধ দত্ত জানান, আমরা কানসাট এই পাগলা নদীর তীরে ও এ নদীতে স্নান করে নিজের জীবনে জমে থাকা পাপকে বিষর্জন করি। এছাড়া আমাদের পূর্ব পুরুষের আমল হতে এখানে এ স্নন মেলা হয়ে আসছে। তা আমরা তাদের স্মৃতি এই ধরে রাখতে চাই এবং ধর্মপ্রান হিন্দুরা ভোক্তি সহকারে পালন করে থাকি। তিনি আরও বলেন, প্রতি বছরের ন্যায় এবারও রোববারএ গঙ্গা স্নান অনুষ্ঠিত হয়।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *