Sharing is caring!

জেলার শিবগঞ্জে উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলোর সাথে পাগলা নদীর উপর দিয়ে যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম শিবগঞ্জ উপজেলার কালুপুর-দুর্লভপুর বেইলী ব্রীজটি দ্রুতই সংস্কারের ব্যবস্থা নেয়া হোক। শিবগঞ্জ উপজেলার বিনোদপুর, মনাকষা, দুর্লভপুর ইউনিয়নসহ শাহবাজপুর, শ্যামপুর ইউনিয়নের কিছু অংশ মিলে প্রায় পৌঁনে ২ লক্ষ মানুষের যাতায়াতের একমাত্র অবলম্বন এই ব্রীজটি। প্রতিদিনই হাজার মানুষ ও শত শত যানবাহন চলাচল করে এই বেইলী ব্রীজটির উপর দিয়ে। ব্রীজের পাটাতন ভেঙ্গে যাওয়ায় এবং পাটাতন খুলে পড়ায় আতংক নিয়ে পারাপার হচ্ছে পথচারীরা ও যানবাহনগুলো। যে কোন সময় বড় ধরণের দূর্ঘটনা, এমনকি প্রাণহানির মত ঘটনাও ঘটতে পারে। ব্রীজের রেলিং এর মোটা পাইপগুলো খুলে নিয়ে গেছে চোরেরা। সেগুলো সংস্কারেরও কোন উদ্যোগ নেই। তাই এসব এলাকার মানুষ নিরাপত্তার কথা ভেবে জরুরী ভিত্তিতে দুর্লভপুর-কালুপুর ব্রীজটি সংস্কারে এগিয়ে আসবেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এমনটায় আশা করছেন এলাকাবাসী। উল্লেখ্য, ১৯৯০ সালে সড়ক ও জনপদ বিভাগের ২৮ বছর আগে নির্মাণ করা এ বেইলী ব্রিজটিতে কোন সংস্কার কাজ না হওয়ায় ব্রীজটির বেহাল অবস্থা। চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জে উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলোর সাথে পাগলা নদীর উপর দিয়ে যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম শিবগঞ্জ উপজেলার দুর্লভপুর বেইলী ব্রীজ। কিন্তু বর্তমানে সেটি একটি আতঙ্কে পরিনত হয়েছে। লৌহ ব্রিজটি যেন সাধারণ মানুষের জন্য মরণ ফাঁদ হয়ে দাঁড়িয়েছে। দীর্ঘদিন থেকে সংস্কার না হওয়ায় ব্রীজের একপার্শ্বের পাটাতন পড়ে এবং লোহার ¯øীপারগুলো ভেঙ্গে যাওয়ায় যে কোন সময় বড় ধরণের দূর্ঘটনার আশংকা করছেন স্থানীয়রা। তবুও যেন কর্তৃপক্ষের কোন মাথাব্যাথাই নেই। দেখেও যেন দেখেনা। কারো চোখেই পড়ছেনা ব্রীজের ভয়ঙ্কর অবস্থার।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *