Sharing is caring!

শিবগঞ্জ প্রতিনিধি \ ৬ ও ৭ অক্টোবর চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জের বিনোদপুর ও মনাকষা ইউনিয়নের গণহত্যা দিবস হলেও দিন দুটি উপলক্ষে কোন কর্মসূচী পালিত না হওয়ায় শহীদ পরিবারের গুলোর মধ্যে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে বলে  শহীদ পরিবার সূত্রে থেকে জানা গেছে। সরজমিনে উপজেলার বিনোদপুর ইউনিয়নের কয়েকটি শহীদ পরিবারের সাথে আলাপ করে জানা যায়, ১৯৭১ সালে ৬ অক্টোবর উপজেলার বিনোদপুর ইউনিয়নের স্থানীয় রাজাকার ও শান্তিকমিটির সহায়তায় পাকবাহিনীরা চাঁনশিকারী, কবিরাজ টোলা, শাধারীটোলাসহ কয়েকটি গ্রামের সারাদিন ধরে শত শত বাড়ি ঘরে লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করে এবং স্বাধীনতা কামী নিরহ ৩৯ জন ব্যক্তিকে বাড়ি থেকে ধরে  এনে বিনোদপুর উচ্চবিদ্যালয় মাঠে সারিবদ্ধভাবে দাঁড় করিয়ে গুলি করে হত্যা করে পুঁতে ফেলে। এদিনকে কেন্দ্র করে শহীদ পরিবারে সন্তান আব্দুর রাকিব শহীদ আরিফুল ইসলাম নামে একটি ফাউন্ডেশন গঠনের মাধ্যমে দিবসটি পালন করে আসছিলেন। কিন্তু গত বছর থেকে দলীয় লবিংগ্রপিং এর কারনে দিবসটি নিয়ে আর কারো কোন মাথা ব্যাথা নেই। অন্যদিকে ৭ অক্টোবর মনাকষা ইউনিয়নের গণহত্যা দিবস। ১৯৭১ সালে এ দিনে স্থানীয় রাজাকার ও আলবদরের সহায়তায় পাকবাহিনীরা মনাকষা ইউনিয়নের পারচৌকা, সিংনগর, খড়িয়াল, হাউসনগর সহ কয়েকটি গ্রামে লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করে এবং মুক্তিযোদ্ধার আত্মীয় হওয়ার কারনে পারচৌকা গ্রামের একই পরিবারের ৫জনসহ ৬ জনকে এবং অন্যান্য গ্রামের আরো ৭ জন নিরহ মানুষকে ধরে এনে হুমায়ুন রেজা উচ্চবিদ্যালয়ের পিছনে  গুলি করে হত্যা করে এক রাজাকারের জমিতে ছোট একটি গর্তে পুঁতে ফেলে। এ ঘটনার ৩৮ বছর পর ২০০৮ সালে ফেব্রæয়ারী মাসে পারচৌকা গ্রামের শহীদ মুসলিম উদ্দিনের ছেলে বদিউর রহমান বুদ্ধ বাদী হয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি যুদ্ধাপরাধী মামলা করে। যা বর্তমানে বিচারাধীন রয়েছে।মনাকষায় গনহত্যাদিবসটি পালিত না হওয়ায় বদিউর রহমান বুদ্ধু ক্ষোভের সাথে জানান, স্বাধীনতার ৪৬বছর পরেও স্বয়ং আওয়ামীলীগ সরকারের আমলে দিবসটি পালন সম্পর্কে স্থানীয় আওয়ামীলীগ কোন ধরনের পদক্ষেপ গ্রহন করা হয়না । যাা শহীদের প্রতি অমর্যদাকর। তিনি আরো জানান, শহীদ দিবস পালন না হওয়া ও শহীদ পরিবারগুলোর কোন মূল্যায়ন না হওয়ায় একটি কারন হলো স্থানীয় আওয়ামীলীগের মধ্যে লবিংগ্রুপিং। যার প্রতিকার হওয়া বাঞ্ছনীয়।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *