Sharing is caring!

শিবগঞ্জ প্রতিনিধি \ চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার পাঁকা ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান মজিবুর রহমানের বিরুদ্ধে বাড়ি-ঘর উচ্ছেদের অভিযোগ উঠেছে। এনিয়ে ভূক্তভোগি নূরুল ইসলাম বাদি হয়ে শিবগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগে বলা হয়েছে- নূরুল ইসলামের ব্যক্তি মালিকানা জমিতে চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে জোরর্পূবক পাঁকা ইউনিয়ন পরিষদের অস্থায়ী কার্যালয় নির্মাণ করেন চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান। এরই জের ধরে শনিবার বিকেলে ওই জমির মালিক নূরুল ইসলামের বাড়ি-ঘর উচ্ছেদসহ গ্রাম ছাড়ার হুমকি দেয় চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান। এসময় তাঁর নেতৃত্বে তার ভাই মাসুদ রানা, গাইপাড়া গ্রামের ওয়াজেদ আলীর ছেলে কাজল, মাজেদ মৌলভীর ছেলে নুরুল হোদা, মোস্তফা মেম্বারের ছেলে সজল আলীসহ একদল সন্ত্রাসী নূরুল ইসলামের বাড়িতে প্রবেশ করে ভাঙচুর শুরু করে। এমনকি নূরুল ইসলামসহ তার পরিবারকে হত্যার হুমকি দিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এদিকে ভূক্তভোগি নূরুল ইসলামের মেয়ে হাসনারা খাতুন স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান, চেয়ারম্যানসহ একদল সন্ত্রাসী বাড়ির ঘরের ভেতরে ঢুকে প্রয়োজনীয় আসবাবপত্র ভাঙচুর শুরু করে। এক পর্যায়ে তার অন্তঃসত্ত্বা বোন খালেদা খাতুনকে শারীরিক ভাবে লাঞ্চিত করলে সে গুরুত্বর আহত হয়। আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে। তিনি আরও অভিযোগ করে জানান, বাড়ির পার্শ্বে অস্থায়ী পাঁকা ইউনিয়ন পরিষদ নির্মাণের পর থেকে ইউনিয়ন পরিষদের পেছনে প্রতিদিন সন্ধ্যার পর মদ, জুয়ার আসর বসায় চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান। এনিয়ে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে এলাকার কেউ মুখ খুলতে সাহস পায় না। এব্যাপারে পাঁকা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের মজিবুর রহমানের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বিষয়টি অস্বীকার করেন। এব্যাপারে সোমবার বিকেলে অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই শাহ্ আলম মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযোগকারী বাড়ি-ঘর ভাঙচুর ও অন্তঃসত্ত্বা নারী নির্যাতনের কোন সত্যতা পাইনি। প্রকৃতি ঘটনা হলো, চেয়ারম্যান রাস্তা তৈরি করতে  চাইছে কিন্তু অভিযোগকারী বলছে এই জমি তাঁর কেনা। তিনি আরো বলেন, চেয়ারম্যান এই অভিযোগকারীর কাছে রাস্তার জন্য চাইলে তিনি তর্কে জড়িয়ে পড়েন। এই, আর কিছু না।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *