Sharing is caring!

shibganj-pic-01শিবগঞ্জ প্রতিনিধি \ ১০দিন পার হলেও সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার মনাকষা ইউনিয়নের সাত-রশিয়া গ্রামের সবেদ আলীর ছেলে মোজাম্মেল হক (৩৮) এর। গভীর রাতে আইনশৃক্সখলা বাহিনীর নাম দিয়ে উঠিয়ে নিয়ে গেলেও খোঁজ নেয় সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশের কাছে নিখোঁজ মোজাম্মেলের। পিতার ফিরে আসার অপেক্ষায় প্রহর গুনছে মোজাম্মেলের ছোট ছোট কোমলমতি ৪টি সন্তান। এমনই অভিযোগে মঙ্গলবার শিবগঞ্জ ডাক বাংলো চত্বরে সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন মোজাম্মেল হকের স্ত্রী ও সন্তানরা। চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার মনাকষা ইউনিয়নের সাত-রশিয়া গ্রামের সবেদ আলীর ছেলে মোঃ মোজাম্মেল হক (৩৮) নিখোঁজের পর শিবগঞ্জ থানায় সন্ধান চেয়ে সাধারণ ডায়েরী করলেও এর কোন সন্ধান দিতে পারেন নি থানা পুলিশ বলে অভিযোগ করেন নিখোঁজ মোজাম্মেল হকের স্ত্রী মোস্তারি বেগম। মঙ্গলবার সকালে শিবগঞ্জ ডাক বাংলো চত্বরে সংবাদ সম্মেলন করে সাংবাদিকদের কাছে তিনি এ অভিযোগ করেন। তিনি আরো বলেন, গত ১৫ নভেম্বর দিবাগত রাত ২ টার দিকে হঠাৎ করে কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই আইনশৃক্সখলা বাহিনীর পরিচয় দিয়ে কিছু ব্যাক্তি বাড়িতে ঢুকে পড়েন এবং আমার স্বামী মোজাম্মেলকে ধরে গাড়িতে উঠিয়ে নিয়ে-ই চলে যায়। পরের দিন সকালে আমার পরিবারের লোকজন শিবগঞ্জ থানায় স্বামী মোজাম্মেল হকের খোঁজ নিলে তারা বলেন রাত্রে পুলিশ তাকে ধরে নিয়ে আসেনি। তার পরপরই র‌্যাব-৫, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ক্যাম্প, ডিবি অফিসসহ জেলার সকল আইনশৃক্সখলা বাহিনীর অফিসে খোঁজ নিলেও আইন শৃক্সখলা বাহিনী কোন সন্ধান দিতে পারেননি। পরে বাধ্য হয়ে শিবগঞ্জ থানায় গত ১৭ নভেম্বর ¯^ামী মোজাম্মেল হকের সন্ধান চেয়ে একটি ডায়েরী করি। যাহা ডায়েরী নং-৭৫৬। এদিকে জানা গেছে, মোজাম্মেল হকের ৩ টি মেয়ে ও একটি ছেলে আছে। তবে, ছেলে-মেয়েরা ছোট। এব্যাপারে শিবগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ এমএম ময়নুল ইসলাম জানান, মনকষা ইউনিয়নের সাত রশিয়া গ্রামের মোজাম্মেল হক নামে নিখোঁজ হয়েছে বলে জানতে পারি। তবে, তাঁর সন্ধান চেয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরী করে। তারা সেখানে উল্লেখ করেছে মোজাম্মেল হক প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে গিয়ে বাসা আর ফিরে আসেনি। তবে, তার খোঁজের জন্য পুলিশ অনুসন্ধান করছে। তার সন্ধান পেলে-ই তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে। এছাড়া তার স্বজনদেরও অনুসন্ধান করার জন্য পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *