Sharing is caring!

শিবগঞ্জ প্রতিনিধি \ চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার বিনোদনপুর ইউনিয়নের লছমানপুর হিন্দুপাড়া গ্রামে পরকীয়ার জের ধরে বাসনা রাণী (২৭)-কে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। আর এই হত্যাকান্ডটি ধামাচাপা দিতে নিহত বাসনা রাণীর গলায় উড়না পেঁচিয়ে শয়নকক্ষের ফ্যানের সাথে ঝুঁলিয়ে আত্মহত্যা প্রমাণের চেষ্টা করেছে অভিযুক্ত স্বামী সঞ্চয় সিংহ। এঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে স্বামী শ্রী সঞ্জয় সিংহকে আটক করেছে শিবগঞ্জ থানা পুলিশ। সংশ্লিষ্ট ইউপি সদস্য ঈদুল আলী জানান, পরকীয়ার জের ধরে উপজেলার বিনোদপুর ইউনিয়নের লছমনপুর হিন্দুপাড়া গ্রামের সঞ্চয় সিংহ তার স্ত্রী বাসনা রাণীকে বৃহস্পতিবার আনুমানিক ভোর ৪ টার দিকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে এবং গলায় ওড়না পেঁচিয়ে নিজ শয়ন ঘরে ফ্যানের সাথে ফাঁসিতে ঝুঁলিয়ে দেয়। বেলা ১১টার দিকে সঞ্জয় কুমার তার স্ত্রীর মরদেহ ফাঁসি থেকে নামিয়ে আত্মহত্যা বলে নিজেকে বাঁচার চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে ঘটনাটি জানাজানি হলে প্রতিবেশীরা বাসনা রাণীর স্বামী সঞ্জয় সিংহকে আটকে রেখে থানা পুলিশকে খবর দিলে ঘটনাস্থল থেকে শিবগঞ্জ পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেছে। এদিকে নিহতের বোন শ্রীমতি পলি রাণী জানায়, সঞ্জয় সিংহের মেজ বৌদি সবিতার সাথে পরকীয়ার সম্পর্ক ছিল। এরই জের ধরে দীর্ঘদিন হতে সঞ্জয় সিংহসহ তার পরিবারের সদস্যরা নানাভাবে বাসনা রাণীকে অত্যাচার নির্যাতন করে আসছিল। বাসনা রাণীর আট বৎসর ও আড়াই বৎসরের দুই ছেলে সন্তান রয়েছে। বাসনা রানী চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার বারঘরিয়া ইউনিয়নের লাহারপুর তাঁতিপাড়া গ্রামের সুনিল চন্দ্র সিংহের মেয়ে। ঘটনার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস.আই কামরুজ্জামান জানান, বাসনা রাণীর গলায় আঙ্গুলের দাগ থাকায় প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে এবং ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে সঞ্জয় সিংহকে আটক করা হয়েছে। এব্যাপারে শিবগঞ্জ থানার ওসি হাবিবুল ইসলাম হাবিব জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে বাসনা রানীর মরদেহ উদ্ধার করেছে এবং ময়না তদন্তের জন্য সদর আধুনিক হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *