Sharing is caring!

শিবগঞ্জ প্রতিনিধি \ শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ২১ চিকিৎসকের পদ থাকলেও কর্মরত রয়েছেন মাত্র ৭জন। এর মধ্যে ডেপুটিশনে রয়েছেন দুই চিকিৎসক। ৭জন চিকিৎসক কর্মরত থাকলেও সোমবার হাসপাতালটিতে উপস্থিত ছিলেন মাত্র ৫জন। এতে চিকিৎসা ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে। চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে কয়েক হাজার সেবা গৃহীতা। অভিযোগ রয়েছে, সরকারি বিধি উপেক্ষা করে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা নিজেদের ইচ্ছা অনুযায়ী দায়িত্ব পালন করে থাকেন। এ বিষয়ে হাসপাতালটির প্রধান ডা. সফিকুল ইসলামের ভাষ্য, নতুন যোগদানের কারণে এখনও কোনো কিছু বুঝে উঠতে পারিনি। হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, ৫০ শয্যা বিশিষ্ট শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জন্য ২১ জন এমবিবিএস ডাক্তারের পদ রয়েছে। তবে হাসপাতালটিতে কর্মরত রয়েছেন ৭ জন চিকিৎসক। অন্য ১৪টি পদ রয়েছে শূন্য। তবে কর্মরত সাতজন চিকিৎসকের মধ্যে চক্ষু বিশেষজ্ঞ সার্জন ও এমবিবিএস ডাক্তার- এ দু’জন ডেপুটিশনে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কর্মরত রয়েছেন। ফলে চোখের চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন উপজেলার মানুষ। এ বিষয়ে স্থানীয় সংবাদকর্মীরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গেলে দেখা যায়, সেখানে বর্হিবিভাগে মাত্র একজন চিকিৎসক এবং জরুরি বিভাগে একজন চিকিৎসক দায়িত্ব পালন করছেন। ২১ জন চিকিৎসকের স্থলে মাত্র সাতজন চিকিৎসক উপস্থিত থাকায় চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয় রোগীসহ অভিভাবক মহলে। এ বিষয়ে উপজেলা  স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সফিকুল ইসলাম বলেন, তিনিসহ ৬ জন চিকিৎসক উপস্থিত রয়েছেন। ১৪টি পদ রয়েছে শূন্য প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *