Sharing is caring!

শিবগঞ্জ প্রতিনিধি \ চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলা সাব-রেজিষ্টার অফিসে শুধু টপিসহির মাধ্যমে লাখ লাখ টাকা চাঁদা আদায় করছে সাব-রেজিষ্টারের কর্মতকর্তা-কর্মচারিরা বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। জানা গেছে, উপজেলা সাব-রেজিষ্টার অফিসে সাপ্তাহে ৫ দিন জমি রেজিষ্ট্রি করা হয়। আর জমি খারিজ, বণ্টনমানা কিংবা ক্রয়কৃত জমি রেজিষ্ট্রি করতে গেলে প্রথমেই টিপসহির মাধ্যমে শুরু হয় এবং সেখানে প্রতি টপিসহি থেকে চাঁদা আদায় করা হয় ৪০ টাকা। এদিকে, অভিযোগ সতত্যা নিশ্চিত করতে সরজমিনে সাব-রেজিষ্টার অফিস পরিদর্শন করে চাঁদা আদায় ও বিভিন্ন দূর্নীতি-অনিয়মের ভিডিও চিত্র ধারণ করা হয়। এব্যাপারে ভূক্তভোগি ও অভিযোগকারী আলফাজ উদ্দিন, শফিকুল ইসলাম, তারিফ হোসেন, জমির উদ্দিন, শরিফুল ইসলামসহ অনেকে অভিযোগ করে বলেন, ক্রয়-বিক্রয়কৃত জমি রেজিষ্ট্রী করার জন্য সাব-রেজিষ্টার অফিসে আসি এবং প্রথমে আমাদের টিপসহি দিতে বলে এবং টিপ দেয়ার পর প্রতি টিপে ৪০ টাকা করে চাঁদা দাবি করে এবং তা আদায়ও করে। এছাড়া সাব-রেজিষ্ট্রার অফিসের বিভিন্ন টেবিলে টাকা দিতে হচ্ছে। যদি টাকা না দিই, তাহলে আমাদের জমি রেজিষ্ট্রি করে দিচ্ছেনা বলেও অভিযোগ করেন ভূক্তভোগিরা। এব্যাপারে টিপসহি প্রদান কক্ষে কর্মরত কর্মচারী মবিন আলীর কাছে জানতে চাইলে তিনি কোন প্রশ্নের উত্তর না দিয়ে উর্ধŸতন কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করতে বলেন এবং পরে চেয়ার ছেড়ে বাইরে চলে যায়। এছাড়া চাঁদা আদায়ের সংবাদ সংগ্রহের সময় উপজেলা দলিল লেখক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল হক সংবাদ প্রকাশ না করার জন্য এই প্রতিবেদককে বিভিন্নভাবে প্রলোভন দেখান। তবে, প্রলোভনে না পড়ে সরাসরি সাব-রেজিষ্টার শুকুমার চন্দ্র দেওরীর সাথে কথা বলেন। এসময় সাব-রেজিষ্টার শুকুমার চন্দ্র দেওরী জানান, টিপসহির সময় যে টাকা নেয়া হয় তা আমি জানিনা। তবে তিনি বড় বাবুর সাথে কথা বলতে বলেন, তিনি এসব দেখাশোনা করেন। কিন্তু সাব-রেজিষ্টার শুকুমার চন্দ্র দেওরী ছাড়া এখানে আবার বড় বাবুটা কে?

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *