Sharing is caring!

শ্রমিকদের উন্নত ও নিরাপদ কর্মপরিবেশ

নিশ্চিতকরণে সরকার দৃঢ়প্রতিজ্ঞ

 

— শ্রম প্রতিমন্ত্রী

♦ প্রেস বিজ্ঞপ্তি

শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মো: মুবিজুল হক বলেছেন, শ্রমিকদের উন্নত ও নিরাপদ কর্মপরিবেশ নিশ্চিত করণে সরকার দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। শ্রমিকদের পেশাগত স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তার বিষয়ে আন্তর্জাতিক প্রশিক্ষনের মাধ্যমে দক্ষ মানবসম্পদ তৈরির লক্ষ্যে সরকার এই মহতী উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। তিনি বৃহষ্পতিবার রাজশাহী শহরের তেরখাদা এলাকায় মন্ত্রণালয়ের নিজস্ব ১৯ বিঘা জমির ওপর আন্তর্জাতিকমানের জাতীয় পেশাগত স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা বিষয়ক গবেষণা ও প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের নির্মাণ কাজের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় একথা বলেন। শ্রম প্রতিমন্ত্রী বলেন, শ্রমিকদের পেশাগত অনেক জটিল রোগ হয়। এসব রোগের চিকিৎসা সাধারণ হাসপাতালে দেয়া সম্ভব হয় না। অনেক সময় রোগ সম্পর্কে সুস্পষ্ট ধারণাও পাওয়া যায় না। এ সকল পেশাগত রোগ সম্পর্কে গবেষণা এবং রোগ নিয়ন্ত্রণে প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ এবং শ্রমিকদের সচেতনতা বৃদ্ধিতে এ ইনস্টিটিউট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। তিনি পেশাগত রোগের চিকিৎসায় পিপিপি’র মাধ্যমে নারায়নগঞ্জে ৩’শ শয্যার একটি বিশেষায়িত হাসপাতাল নির্মাণ করা হচ্ছে বলে উল্লেখ করেন। শ্রম প্রতিমন্ত্রী বলেন, এ ইনস্টিটিউটে শ্রমিক-মালিক এবং মিড লেভেল ম্যানেজমেন্টের বিভিন্ন বিষয়ে আন্তর্জাতিকমানের প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে। প্রশিক্ষণ প্রদানের বিষয়ে আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা-আইএলও, সুইডেন, ডেনমার্ক এবং নেদারল্যান্ড সরকার কারিগরি সহায়তা এবং ট্রেইনারসহ সার্বিক সহযোগিতার বিষয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। তিনি বলেন, শ্রমিকদের দুর্ঘটনা, পেশাগত স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তার বিষয়ে গবেষণা ও প্রশিক্ষণের জন্য বাংলাদেশে এটিই প্রথম ইনস্টিটিউট। প্রতিমন্ত্রী বলেন, আশপাশের দেশগুলোর মধ্যে ভারতে শুধু এ ধরণের একটি প্রতিষ্ঠান রয়েছে। বাকি নেপাল, ভুটান, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কায় এধরণের কোন প্রতিষ্ঠান নেই। ফলে এসব দেশের পেশাগত স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তার বিষয়ে গবেষণা ও প্রশিক্ষণের জন্য শ্রম সংশ্লিষ্ট লোকজন এখানে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করবে বলে আশা করা যায়। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় সিটি মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, রাজশাহীতে এ ধরণের একটি ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় আরো একটি মাইলফলক উন্মোচিত হলো। তিনি বলেন, শিক্ষা নগরী রাজশাহীতে মেডিক্যাল বিশ^বিদ্যালয়ের জন্য ভূমি অধিগ্রহণ চলছে, আগামীতে এখানে একটি কৃষি বিশ^বিদ্যালয়ও প্রতিষ্ঠা করা হবে। দেশের অগ্রযাত্রায় রাজশাহীর এসকল প্রতিষ্ঠান গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। অনুষ্ঠানে স্থানীয় সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা, মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত সচিব আশরাফ শামীম, বিআইআরসি’র কমানডেন্ট ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের মহাপরিদর্শক শামসুজ্জামান ভূঁইয়া, শ্রম অধিদপ্তরের মহাপরিচালক শিবনাথ রায় এবং সেনা কল্যাণ সংস্থার প্রধান প্রকৌশলী কর্ণেল এবিএম মিজানুর রহমান বক্তৃতা করেন। এ প্রকল্পে ব্যয় ধরা হযেছে ১৬৫ কোটি ২৮ লাখ টাকা। ২০২১ সালের জুন মাসের মধ্যে এ প্রকল্পের কাজ শেষ হবে বলে আশা করা হচ্ছে। প্রতিমন্ত্রী এ বছর বুয়েটে ভর্তির সুযোগ পাওয়া বাঘা উপজেলা মনিগ্রামের মো. আলম প্রামানিকের ছেলে তুহিন মাহমুদের হাতে বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ তহবিল থেকে নগদ ৫০ হাজার টাকা তুলে দেন। তুহিন আগামী তিন বছরে এ তহবিল থেকে মোট ৩ লাখ টাকা শিক্ষা সহায়তা পাবেন। আকতারুল/হালিম/২০১৮

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *