Sharing is caring!

Rajshahi Tourter Pic 31.05.15

রাজশাহী সংবাদদাতা \ সন্ত্রাসীদের অব্যাহত হুমকি ও সন্ত্রাসী কার্যকলাপের কারণে দেড় বছর থেকে বাড়ি ছাড়া রয়েছে রাজধানী ঢাকার একটি পরিবার। যার কারণে পরিবারটি বাড়ি ভাড়াসহ ব্যাবসায়িকভাবে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এঅবস্থায় তারা প্রশাসনসহ প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন এবং নিরাপত্তা দাবী করেন। রোববার সকালে রাজশাহী নগরীতে এক সাংবাদিক সম্মেলনে ভুক্তভোগী পরিবারটি তাদের বক্তব্য তুলে ধরেন। এসময় লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান পরিবারের সদস্য রায়হান-উর-রহমান। লিখিত বক্তব্যে অভিযোগ করে বলা হয়, ২০১০ সালে অভিযুক্ত ঢাকার বাসিন্দা ইকবাল কবির, সেলিম রেজা, মনিরুল ইসলাম, গোলাম ইয়াজদানী গাউস, কামরুজ্জামান, সাইফুল আলম মাসুদ, এ এস এম সাকের, নজরুল ইসলাম, আবুল হাসনাত ভ‚ইয়া নোমান ও হামীম উদ্দীনের সাথে তাদের ব্যবসায়িক সম্পর্ক ছিলো। পরে ২০১৩ সালে কিছু অন্যায় দাবী মেনে না নেয়ার কারণে তাদের সাথে মনোমালিন্যের সৃষ্টি হয়। এরই জের ধরে পরবর্তী সময়ে তারা রাস্তাঘাটসহ বিভিন্ন স্থানে রায়হানকে লাঞ্ছিত ও অপহরণের চেষ্টা করে। এমন কি তাকে রাস্তায় এবং বাসায় হামলা চালিয়ে তারা ব্যাংক চেক, জমিজমার কাগজপত্র, এটিম কার্ডসহ বিভিন্ন মূল্যবান জিনিসপত্র ছিনিয়ে নেয়। অভিযুক্তদের অব্যহিত হুমকি এবং সন্ত্রাসী বাহিনীর কারণে আমার মিরপুরের বাসার ভাড়াটিয়ারা বাড়ি ছেড়ে দিয়েছে। ফলে পরিবারের ভরণপোষণ কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। নিরাপত্তাহীনতার কারণে বাড়ি ছাড়া হবার দরুণ সময়মতো গ্যাস-বিদ্যুত বিল পরিশোধ করতে না পারায় সব সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান। বক্তব্যে রায়হান আরো জানান, ‘তার কোন অপরাধ বা অন্যায় থাকলে প্রচলিত আইনে বিচার হতে পারে। আমি এজন্য আমি প্রস্তুত। কিন্তু পরিবারের প্রতি তাদের মানষিক ও শারীরিক অত্যাচারের কারণে আমরা অসহায় হয়ে পড়েছি। এমতাবস্থায় পরিবারসহ নিশ্চিন্তে বসবাসের নিরাপত্তা প্রদান করতে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনসহ প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি।’ এক প্রশ্নে জবাবে তারা জানান, সন্ত্রাসীদের অব্যাহত হুমকির কারণে কোন স্থানে বেশিদিন থাকতে পারছেন না। এক প্রকার উদ্বাস্তুর জীবন কাটাতে হচ্ছে। সাংবাদিক সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে রায়হানের মা ও বোন উপস্থিত ছিলেন। তার পিতা এক সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেলে রায়হানের উপর পরিবারের দায়িত্ব বর্তায়।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *