Sharing is caring!

স্টাফ রিপোর্টার \ বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, যারা সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, মাদক ব্যবসায়ী, তাঁরা আওয়ামীলীগের সদস্য হতে পারবে না। তরুণ এবং নারী ভোটাররা আগামী নির্বাচনে আওয়ামীলীগকে ভোট দিয়ে ক্ষমতায় নিয়ে যাবে। তিনি বলেন, বিএনপির কথা মালার চাতুরী ছাড়া আগামী নির্বাচনে জেতার জন্য আর কোন পুঁজি নেই। বুধবার দুপুরে চাঁপাইনবাবগঞ্জ হরিমোহন সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কার্যক্রমের উদ্বোধন পরবর্তী সমাবেশে প্রধান অতিথি বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। মন্ত্রী বলেন, বিএনপি বাংলাদেশ নালিশ পার্টি, তাঁরা চাতুরি করে ক্ষমতায় আসার স্বপ্ন দেখছে। ঘরে বসে মিথ্যাচারের ভাঙ্গা রেডিও বাজাচ্ছে। প্রধান অতিথি ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি সাংগঠনিকভাবে দূর্বল। কিন্তু তাঁদের পিছনে অপশক্তি জামায়াত রয়েছে। তাঁরা নির্বাচনের শেষ সময়ে জোটবন্ধ হয়ে ক্ষমতায় যাওয়ার চেষ্টা করবে। তাই আমাদের শক্ত হয়ে কাধে কাধ মিলিয়ে কাজ করতে হবে। সেতুমন্ত্রী বলেন, যারা দেশের উন্নয়ন চাই না, তাদেরকে ভোট দিয়ে ক্ষমতায় আনার প্রয়োজন নেই। বিএনপি যদি আবারও ক্ষমতায় আসে, তাহলে দেশের উন্নয়নের চেয়ে লুটপাট, ছিনতাই শুরু করবে। ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামীলীগ সরকার দেশে গত তিনি বছরে যে উন্নয়ন করেছে, তাঁর চেয়ে বিএনপি-জামায়াত রাষ্ট্রে সম্পদ ধ্বংস করেছে। আন্দোলনের নামে তাঁরা মানুষ পুড়িয়ে মেরেছে, গাছ ও রাস্তা কেটে সড়কে সাধারণ মানুষের চলাচলে বিঘœতা ঘটিয়েছে। তাই আওয়ামীলীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে আবারো ভোট দিয়ে ক্ষমতায় আনতে হবে। তাহলেই দেশ আরো উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাবে। ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামীলীগ সরকার দেশে গত তিনি বছরে যে উন্নয়ন করেছে, ৭৫ পরবর্তী সকল সরকারের উন্নয়নের চেয়ে অনেক অনেক বেশী। আমাদের শক্ত হয়ে কাধে কাধ মিলিয়ে কাজ করতে হবে। সাধারণ ভোটারাদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট প্রদাণ করতে হবে। জনগণকে খুশি করতে হবে। তৃণমূল নেতাকর্মীদের কাজে লাগিয়ে আগামী নির্বাচনের মোকাবেলা করতে হবে। স্থানী নেতাদের উদ্দেশ্য করে সেতুমন্ত্রী বলেন, নেতা হয়ে কর্মীদের অবমূলায়ন করবেন না। কর্মীরাই আমাদের রাজনৈতিক প্রাণ। যে কর্মী দলের জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করে আপনাকে নেতা বানাতে পারে। তাই সে সব কর্মীদের অগ্রাধিকার দিতে হবে। তিনি আরো বলেন, যখন কমিটি গঠন করবেন; ভুলেও পটেক কমিটি করবেন না। যদি পটেক কমিটি করেন, আর যদি তৃণমূল কর্মীরা আমাদের কাছে অভিযোগ নিয়ে আসে; তাহলে আমরা প্রয়োজনী ব্যবস্থা নিবো। তাই কমিটি গঠন করা আগে যারা দলের হয়ে কাজ করেছে তাদের কমিটিতে জায়গা করে দিতে হবে। মন্ত্রী বলেন, নেতা চাই, কিন্তু পাতি নেতা নয়। ক্ষমতায় এসে কর্মীদের অবমূলায়ন করবেন সেটা মেনে নেয়া যাবে না। ক্ষমতায় বসে দলীয় সমালোচনা করবেন আর অপশক্তিকে মাথা উঁচু করে দাঁড়াকে সহযোগিতা করবেন তা কখনো ক্ষমা করবো না। যারা নেতৃত্ব দিবেন, তাদের দলের কাজ করতে হবে। জনগণকে খুশি করতে হবে। তিনি আরো বলেন, যারা প্রার্থীতা হতে কোন সমস্যা নেই। তবে, অসুস্থ ব্যক্তি প্রার্থীতা হতে পারবেন না। প্রার্থীতা হলেই যে মনোয়ন পাবেন সেটা নয়। যারা প্রার্থীতা হলে, অপশক্তি সাথে হাত মিলিয়েছে, সন্ত্রাস-চাঁদাবাজ ও বিএনপি-জামায়াতকে সাথে নিয়ে দল ভারি করছেন তাঁরা মনোয়ন পাবেন না। মনোয়ন পেতে হলে ভালো কাজ করবেন। ভালো করে সাধারণ জনগণকে খুশি করতে হবে। খারাপ লোককে সাথে নিয়ে দল ভারি করে সমর্থক বাড়াবেন না। বুধবার দুপুরে জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব মঈনুদ্দিন মন্ডলের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন, আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন, নুরুল ইসলাম ঠান্ডু, জেলা শাখা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল ওদুদসহ অন্যরা। উপস্থিত ছিলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ (শিবগঞ্জ) আসেন সংসদ সদস্য গোলাম রাব্বানী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য গোলাম মোস্তফা বিশ্বাস, মহিলা সংসদ সদস্য বেগম আখতার জাহান, বিদ্যুৎ, জ¦ালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সাবেক প্রতিমন্ত্রী ব্রি. অব. এনামুল হক, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব রুহুল আমিন, সাবেক এমপি জিয়াউর রহমান, যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আনোয়ারুল ইসলাম আনোয়ার, রাজশাহী আওয়ামীলীগ নেতা ডাবলু সরকার ও আসাদুজ্জামান আসাদ, এ্যাড. নজরুল ইসলাম, এ্যাড. আতাউর রহমান, এ্যাড. মিজানুর রহমান, এ্যাড. ইয়াসমীন সুলতানা রুমা, জেলা যুবলীগের সভাপতি মাসিদুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক শহীদুল হুদা অলক, মহিলালীগ নেত্রী ও জেলা পরিষদ সদস্য হালিমা বেগমসহ জেলা, উপজেলা আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনের বিভিন্নস্তরের নেতৃবৃন্দ। সমাবেশে জেলা প্রায় ৩০ হাজার নারী পুরুষ অংশ নেয়। এসময় জেলার বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে মন্ত্রী জেলার ২টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন এবং ২টি কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *