Sharing is caring!

godagari photo11-11-15 -2 (2)সফিকুল ইসলাম, গোদাগাড়ী থেকে \ বাংলাদেশে টমেটোর অঙ্গরাজ্য হিসাবে খ্যাতো রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলা। দেশের সিংগভাগ টমেটো চাষ হয় এ উপজেলায়। চলতি মৌসুমে এ উপজেলার কৃষকেরা পেয়ারা বাগানে সাথী ফসল হিসাবে টমেটো চাষে ঝুকেছে। উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, পেয়ারা বাগানে টমেটোর চাষ। অনেক কৃষক এক সাথে পেয়ারা বাগানে টমেটো চাষ করে ক্ষেত থেকে টমেটো তুলতে শুরু করেছে। এমন কি পেয়ারা গাছে ফুল দিতে শুরু করেছে। টমেটো শেষ হতে না হতে শুরু হবে পেয়ারা তোলা। এক সাথে পেয়ারা বাগানে টমেটো চাষ করাতে কৃষকদের টমেটো চাষের জন্য আলাদা করে খরচ গুনতে হচ্ছে না। পেয়ারা চাষের জন্য জমি তৈরী, সার, বিষ ও সেচ দিতে যে খরচ হচ্ছে সেই খরচে টমেটো চাষ হয়ে যাচ্ছে কৃষকদের। বাড়তি শুধু টমেটোর বীজ কিনতে খরচ হচ্ছে। গোদাগাড়ী কৃষি অফিস সুত্রে জানা জায়, চলতি মৌসুমে এক সাথে টমেটো ও পেয়ারা চাষ হয়েছে প্রায়  হাজার ৫ শ’ হেক্টোর জমিতে। পেয়ারা বাগানে সাথী  ফসল হিসাবে টমেটো চাষ করলে টমেটোর ফলন ভালো হয় এবং ¯^াভাবিক টমেটো গাছের চাইতে এক থেকে দেড় মাস বেশী টমেটোর গাছ টিকবে। একটি পেয়ারার বাগানে ৩ বছর সাথী ফসল হিসাবে টমেটো চাষ করা যায় বলে কৃষি অফিস সুত্রে জানায়। উপজেলার সিমলা গ্রামের কৃষক সাঈদ বলেন, এ বছর ২ বিঘা পেয়ারা বাগানে সাথী ফসল টমেটোর চাষ করেছি। টমেটো উঠতে শুরু করেছে। পেয়ারা গাছে ফুল দিতে শুরু করেছে। টমেটো তোলার পর পেয়ারা তুলতে শুরু করবো। পেয়ারা বাগান তৈরী করার সময় বয়স্ক পেয়ারার চারা লাগালে ৮ থেকে ৯ মাসের মধ্যে পেয়ারার ফল পাওয়া যায়। পেয়ারার গাছ প্রায় ৬ থেকে ৭ বছর ধরে ফল দেয়। পেয়ারা বাগানে সাথী ফসল হিসাবে টমেটোর ফলন হয় প্রায় ৫০ থেকে ৬০ মন। শেষ পর্যন্ত টমেটোর গাছ থেকে ভাল টমেটো পাওয়া যায়। গোদাগাড়ী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোজদার হোসেন বলেন, পেয়ারা বাগানে সাথী ফসল হিসাবে টমেটো চাষ করতে কৃষককে বাড়তি খরচ করতে হয় না। টমেটো শেষ হওয়ার পর সাথী ফসল হিসাবে অন্য ফসল চাষ করা যায়। এছাড়াও পেয়ারা বাগানে প্রায় ৩ বছর সাথী ফসল চাষ করার পর পেয়ারার গাছ বড় হলে পেয়ারা বাগানে রাজহাঁস পালন করা যায়।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *