Sharing is caring!

517x344শিবগঞ্জ প্রতিনিধি \ দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম স্থলবন্দর চাঁপাইনবাবগঞ্জের সোনামসজিদ বন্দরে পাথর, কাঁচামালসহ বিভিন্ন ধরনের দ্রব্য আমদানীর ক্ষেত্রে কাস্টমস ও সিএন্ডএফ এসোসিয়েশনের মধ্যে দ্বন্দের কারণে অহেতুক হয়রানী বন্ধের দাবীতে সহকারী কমিশনারের (কাস্টমস) সাথে আলোচনা করতে গিয়ে সিএ্যান্ডএফ এসোসিয়েশনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পদককে অপমান, কটুক্তি ও হুমকীর দেয়ার প্রতিবাদে মঙ্গলবার বিকেল থেকে সোনামসজিদ স্থলবন্দরের যাবতীয় কার্যক্রম বন্ধ বরে অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতী ঘোষনা করছে সিএন্ডএফ এসোসিয়েশন। অন্যদিকে কাষ্টমস কর্তৃপক্ষের অভিযোগ, অবৈধ সুবিধা বন্ধ করে দেয়ায় কিছু অসাধু সিএন্ডএফ এজেন্টরা এ ধরনের কর্মসূচি ঘোষনা করছে। সিএন্ডএফ এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মোহাঃ সফিউল আলম টানু জানান, সোমবার সকালে সিএন্ডএফ এজেন্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি হারুন-অর-রশিদসহ কয়েকজন সদস্য ভারত থেকে আমদানীকৃত বিভিন্ন ধরনের দ্রব্যের উপর অতিরিক্ত কর আদায়সহ বিভিন্ন ধরনের হযরানী বন্ধের জন্য কাষ্টম্স অফিসে আলোচনা করতে গেলে সহকারী কমিশনার (কাস্টমস) মোহাঃ ফকরুল আমিন চৌধূরী তাদেরকে বিভিন্ন ধরনের হুমকী দেন এবং কটুক্তি ও অপমান করে অফিস থেকে বের করে দেন। একই কারণে মঙ্গলবার বিকেলে আবার তারা সহকারী কমিশনার ফকরুল আমিন চৌধূরীর সাথে দেখা করতে গেলে সমস্ত সিএন্ডএফ এজেন্টদের লাইসেন্স বাতিলসহ বিভিন্ন শাস্তিমূলক ব্যাবস্থা নেয়ার ঘোষনা দেন। এ ঘটনার প্রতিবাদে এসোসিয়েশনের হলরুমে সিএন্ডএফ সদস্যরা জরুরী বৈঠকের সিন্ধান্ত মোতাবেক সন্ধ্যায় সমস্যার সমাধান ও অপমানের বিচার না হওয়া পর্যন্ত বন্দরের যাবতীয় কার্যক্রম বন্ধ করে অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতি ঘোষনা করেন। সোনামসজিদ স্থলবন্দরে কাস্টমস ও সিএন্ডএফ এজেন্টেদের দ্বন্দের কারণে সোনামসজিদ স্থলবন্দরে সকল প্রকার আমদানি-রপ্তানী বন্ধ থাকে। বুধবার সকাল থেকে ভারতের মহদিপুর স্থলবন্দর দিয়ে কোন ধরনের পণ্যবাহী ট্রাক প্রবেশ করেনি। ভারতের মহদিপুর স্থলবন্দর সিএন্ডএফ এজেন্ট ওয়েলফেয়ার এ্যাসোসিয়েশনের সাধারন সম্পাদক শ্রী ভূপতি মন্ডল জানান, বাংলাদেশের সোনামসজিদ স্থলবন্দরের অভ্যন্তরীণ  দ্বন্দের কারণে গাড়ি প্রবেশ বন্ধ থাকায় মহদিপুর স্থলবন্দরে ফল-পেঁয়াজসহ বিভিন্ন প্রকার পন্যবাহী প্রায় দুই হাজার ট্রাক আটকা পড়ে। একটি সূত্র জানায়, কাষ্টমস কর্তৃপক্ষ মঙ্গলবার সকাল থেকে বন্দরে পন্যবাহী ট্রাক থেকে শতভাগ রাজস্ব আদায় আরম্ভ এবং বিভিন্ন অনিয়ম শনাক্ত করে ব্যবস্থা নেয়া প্রত্যয় ব্যক্ত করলে অসাধু ব্যবসায়ীরা সুবিধা করতে না পেরে এ আন্দোলনের ঘোষনা দিয়েছে। সূত্রটি আরও জানায় একারণে অন্যান্য দিন এ বন্দরে ফলসহ বিভিন্ন কাঁচামালের ২ শতাধিক পন্যবাহী ট্রাক ভারত থেকে প্রবেশ করলেও মঙ্গলবার সারাদিনে মাত্র ২টি ফলের ট্রাক ভারত থেকে প্রবেশ করেছে। এ ব্যাপারে সহকারী কমিশনার (কাস্টম) মোহাঃ ফকরুল আমিন চৌধূরী জানান, আমদানীকৃত পাথর, বিভিন্ন ধররেন ফল ও অন্যান্য কাঁচামালের ক্ষেত্রে সিএন্ডএফ এজেন্ট এসোসিয়েশনের সদস্যরা দীর্ঘদিন যাবত অনিয়ম করে আসছে। সরকার মোটা অংকের রাজস্ব থেকেও বঞ্চিত। এ অনিয়ম বন্ধ করার পদক্ষেপ নিতে গিয়ে তারা কর্মবিরতি ঘোষনা করেছে। তবে যে কোন মূল্যে বন্দরের যাবতীয় কার্যক্রম চলবে। সোনামসজিদ সিএন্ডএফ এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি হারুন অর রশিদ জানান, বন্দরের সকল কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে চলছে। এরই মধ্যে কিছু কাস্টমস কর্মকর্তা ইর্শ্বানিত হয়ে বন্দরে জটিলতা সৃষ্টির চেষ্টা করছেন। এরই প্রতিবাদে বন্দরে কর্মবিরতীর ঘোষণা দেয়া হয়েছে। তবে, রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনারের সাথে আলোচনা হয়েছে এবং সিএন্ডএফ এ্যাসোসিয়েশনের দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস প্রদান করেছেন তিনি। দ্রুত এ সমস্যার সামাধান হয়ে যাবে। অন্যদিকে সোনামসজিদ স্থলবন্দর সিএন্ডএফ এজেন্ট এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক শফিউর রহমান টানু জানান, কাস্টমস কর্তৃপক্ষদের সাথে আলাপ আলোচনা চলছে বিষয়টি দ্রুত সমাধান করা হবে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *