Sharing is caring!

শিবগঞ্জ সংবাদদাতা \ চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার সোনামসজিদ স্থলবন্দরের তিনটি পয়েন্টে চলছে বেপরোয়া চাঁদাবাজি। যেনো দেখেও কেউ দেখে না। আর চাঁদাবাজির কারণে চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছে বাংলাদেশী ও ভারতীয় যাত্রীরা। পুলিশ ইমিগ্রেশনে পোস্টধারী যাত্রীর কাছ থেকে পাস পোস্ট প্রতি ১০০ টাকা, পাস পোস্ট এন্ট্রি এন্ড পাস পোস্ট চেকিং হল রুমে পাস পোস্ট প্রতি ১০০ টাকা, ও ভারতীয় পণ্যবোঝায় ট্রাক এন্ট্রি সেন্টারে প্রতি ট্রাকে ২০-৩০ রূপি চাঁদা আদায় করছে এখানকার অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারিরা। সরজমিনে গিয়ে এর  সত্যতা মিলেছে। এদিকে তথ্য সংগ্রহ করে জানা গছে, দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ভারতে চিকিৎসা নিতে আসাসহ বিভিন্ন ধরণের সাধারণ যাত্রীরা প্রতিদিন এই সীমান্ত দিয়ে প্রায় ১৫০ জন যাত্রী পারাপার হয়। আর স্থল বন্দরে প্রতিদিন প্রায় পণ্যবোঝায় ট্রাক ৫০০টি প্রবেশ করে। পুলিশ ইমিগ্রেশন ও পাস পোস্ট এন্ট্রি এন্ড পাস পোস্ট চেকিং হল রুমে পাস পোস্ট প্রতি ১০০ টাকা করে নেয়া হলে এই দুই পয়েন্টে মাসে চাঁদা আদায় করা হয় প্রায় ৯ লাখ টাকা। আর ভারতীয় পণ্যবোঝায় ট্রাক এন্ট্রি সেন্টারে আদায় করা হয় প্রায় সাড়ে ৪ লাখ রুপি। এব্যাপারে পুলিশ ইমিগ্রেশনে কর্তব্যরত কর্মকর্তা এসআই সানোয়ার জানান, প্রতিদিন এই সীমান্ত দিয়ে প্রায় ১৫০ জন যাত্রী পারাপার হয়। কিন্তু চাঁদা আদায়ের বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না বলে এই প্রতিবেদককে জানান। তবে, বিদ্যুৎ নামে এক কর্মচারি এই চাঁদা আদায় করে বলে নিশ্চিত করেন ভোগান্তির শিকার যাত্রীরা। অপরদিকে পাস পোস্ট এন্ট্রি এন্ড পাস পোস্ট চেকিং হল রুমে প্রকাশ্যে পাস পোস্ট প্রতি ১০০ টাকা করে চাঁদা আদায় করছে দায়িত্বরত কর্মচারিরা। কিন্তু তথ্য সংগ্রহের জন্য ওই পয়েন্টে যাওয়া হলে কর্তব্যরত সিপাহী একরামূল হক কোন তথ্য না দিয়ে তিনি উর্ধতন কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলতে বলেন। তিনি বলেন, এখানে যা হচ্ছে তাদের নির্দেশেই হচ্ছে। এব্যাপারে ব্যাগেজ বিভাগের কর্মকর্তা সহকারি রাজস্ব কর্মকর্তা মিল্টন হোসেন তা অস্বীকার করে বলেন, আমার এই ব্যাগেজ বিভাগে কোন প্রকার অনিয়ম বা চাঁদা আদায় করা হয়না। সঠিকভাবে পরিচালনা করা হচ্ছে। সোনামসজিদ স্থলবন্দরের কাস্টমসের সহকারি কমিশনার নূরুল বাসির জানান চাঁদা আদায়ের বিষয়ে আমার কিছু জানা নেই। তবে, এখন জানলাম। এসব অনিয়মের বিষয়ে তদন্ত  স্বাপেক্ষে পদক্ষেপ নিয়া হবে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *