Sharing is caring!

shibgan-pic-01শিবগঞ্জ প্রতিনিধি \ চাঁপাইনবাবগঞ্জের সোনামসজিদ স্থলবন্দরে টানা এক সপ্তাহ সকল পণ্য আমদানি বন্ধের পর স্থলবন্দরে সকল পণ্য আমদানি-রপ্তানি করতে দু’দেশে আমদানি-রপ্তানিকারকরা সমঝোতা বৈঠক করেছে। শনিবার বিকেলে সোনামসজিদ-মহদীপুর জিরো পয়েন্টে মালদা মার্চেন্ট চেম্বার অব কমার্স  এর সাধারণ সম্পাদক উজ্জল সাহা ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রিজ এর সভাপতি আবদুল ওয়াহেদ এর নেতৃত্বে মহদীপুর এক্সপোর্টারস এ্যাসোসিয়েন এবং সোনামসজিদ আমদানি-রপ্তারিকারকদের প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে সকল পণ্য আমদানি করার সিদ্ধান্ত হয়। সভায় চলমান সমস্যা সমাধানের জন্য চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত আগামী ২২ মার্চ এর মধ্যে মালদা ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ চেম্বারের নেতৃবৃন্দকে দ্বায়িত্ব অর্পন করে। বৈঠকে আরো সিদ্ধান্ত নেয়া হয় গত ৬ মার্চ যে প্রদ্ধতিতে পাথর আমদানি-রপ্তানি চালু ছিল আগামী ২২ মার্চ পর্যন্ত তা বহাল রাখা হয়েছে। উল্লে¬খ্য, সোনামসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে আসা পাথরের দাম দফায় দফায় বৃদ্ধি, ভারতীয় ট্রাক পাকুড় থেকে সরাসরি বাংলাদেশে ঢুকতে না দিয়ে মহদীপুরে ডাম্পিং করা, নিম্নমানের পাথর ও মাটি মেশানো, ইচ্ছাকৃত যানজট ও কৃত্রিম সঙ্কট সৃষ্টিসহ দেশীয় আমদানিকারকদের বিপাকে ফেলে ফায়দা নেয়ায় আমদানিকারকরা চরম ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে। পদ্মা সেতু ও রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পে পাথরের ব্যাপক চাহিদার কারণে ভারতীয় পাথর রফতানিকারকরা এটিকে পুঁজি করে ফায়দা লুটছে বলে অভিযোগ আমদানিকারকদের। রপ্তানিকারকরা কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি ও জিম্মি করে বাংলাদেশী আমদানিকারকদের কাছ থেকে অধিক মুনাফা আদায় শুরু করে। দেশীয় আমদানিকারকরা পাথর না নেয়ার সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে ৬ মার্চ রবিবার থেকে সব পন্য রপ্তানি বন্ধ রাখে ভারতীয় রপ্তানিকারকরা। এর প্রেক্ষিতে সকল পণ্য আমাদানি-রপ্তানি আবারো চালু করতে শনিবার বিকেলে থেকে পাথর ছাড়া সব পন্য আমদানি-রপ্তানি করতে উভয় দেশের আমদানি-রপ্তারিকারকদের প্রতিনিধিরা এ বৈঠক করেন।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *