Sharing is caring!

Naogaon Pic (2) 17.01.17নওগাঁ প্রতিনিধি \ স্বাধীনতার ৪৬ বছর পেরিয়ে গেলেও মুক্তিযোদ্ধা তালিকায় নাম অন্তভর্‚ক্ত হয়নি নওগাঁর ধামইরহাট ইউনিয়নের মইশড় গ্রামের মৃত মনার উদ্দিনের ছেলে সিরাজুল ইসলাম (৬৪)’র। বার বার তালিকায় নাম অন্তভর্‚ক্ত করার চেষ্টা করেও রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে তা হয়নি। জানা গেছে, উপজেলার ১নং ধামইরহাট ইউনিয়নের অন্তর্গত মইশড় গ্রামের মৃত মনার উদ্দিনের ছেলে সিরাজুল ইসলাম (৬৪) মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে সক্রিয়ভাবে অংশ গ্রহণ করেও তার নাম মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় অন্তভর্‚ক্ত হয়নি। এব্যাপারে মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম বলেন, ১৯৭১ সালে ভারতের দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার মধুপুর ক্যাম্পে প্রশিক্ষণ নিয়ে তিনি বাংলাদেশের অভ্যন্তরে প্রবেশ করে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে পাক বাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধে অংশ গ্রহণ করেন। তিনি মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সোবহান মাস্টারের নেতৃত্বে উপজেলার চককালু গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা লুৎফর রহমান, কাজলগ্রামের মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রহমানসহ অন্যান্য মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে উপজেলার রঘুনাথপুর, বস্তাবর, মাহিসন্তোষ এলাকায় সংঘটিত মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহণ করেন। স্বাধীনতার পর তার সহযোদ্ধা অনেকে মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় নাম লেখালেও তিনি এ বিষয়ে উদাসীন ছিলেন। পরবর্তীতে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক নওগাঁর সন্তান সাবেকমন্ত্রী প্রয়াত আব্দুল জলিলের স্বাক্ষরিত একটি সনদপত্র গ্রহণ করেন। যার সিরিয়াল নং-৯০৭। গত জোট সরকারের আমলে তিনি মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় অন্তভর্‚ক্তির আবেদন করলেও রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে সেই তালিকা থেকে তার নাম বাদ দেয়া হয়। বর্তমানে অন্যের বাড়ী কামলা দিয়ে সংসার চালানো মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম শেষ বারের মতো গত ২০১৪ সালে মুক্তিযোদ্ধা অন্তভর্‚ক্তির তালিকায় নাম লেখানোর জন্য আবেদন করেছেন। নওগাঁ জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সহকারী কমান্ডার মুক্তিযোদ্ধা মোখলেছুর আলম বলেন, দরিদ্র সিরাজুল ইসলাম স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশ গ্রহণ করেছেন। উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো. আব্দুর রউফ বলেন, আগামী ফেব্রুয়ারী মাসে এ উপজেলার মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই-বাছাই প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে। আবেদনকারীরা যদি সঠিক প্রমাণাদি উপস্থাপন করতে পারেন তবে তাদের মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় নাম অন্তভর্‚ক্তিতে কোন বাধা থাকবে না।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *