Sharing is caring!

মোহাঃ ইমরান আলী \ পবিত্র ঈদ-উল ফিতরকে সামনে রেখে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম স্থলবন্দর সোনামসজিদ আগামী ২৩ জুন শুক্রবার থেকে ১ জুলাই শনিবার ৯দিন ছুটির ফাঁদে পড়ছে। ফলে আগামী ৯দিন এই বন্দরে ভারতীয় সকল পণ্য আমদানি-রপ্তানি বন্ধ থাকবে। আর এই ছুটির কারণে স্থলবন্দরের সহ¯্রাধিক শ্রমিকরা মাবনবেতর জীবনযাপন করবেন বলে আশঙ্কা করছেন শ্রমিকরা। জানা গেছে, সোনামসজিদ স্থলবন্দরে প্রায় সহ¯্রাধিক শ্রমিক কাজ করেন। এই শ্রমিকরা প্রতিদিন যে মুজুরি পায়, তাতে দিন আনে, দিনে খাই, কোন রকমে পরিবার নিয়ে ধুকে ধুকে বেঁচে থাকা। টানা ৯দিন ছুটি হওয়ায় শ্রমিকরা দুশ্চিন্তায় পড়েছে। যেনো বাড়তি দুশ্চিন্তা মাথার উপরে। এদিকে শ্রমিকরা বলেন, ঈদের খুশি সবাই করতে চাই, আমরাও করবো। কিন্তু পরিবারের সদস্যদের ৯দিন কি খাওয়াবো তাই ভেবে উঠতে পারছি না। প্রতিদিন যে মুজুরি পায়, তাতে দিনে দিনে ডাল-ভাত খেয়ে খরচ হয়ে যায়। এদিকে, সোনামসজিদ স্থলবন্দর শ্রমিক সমš^য় কমিটির সভাপতি সাদেকুর রহমান মাস্টার বলেন, টানা ৯দিন বন্দর ছুটি হওয়ার কারণে আমাদের শ্রমিকরা ব্যপক ক্ষতির সমুখিন হবে। এমনিতেই শ্রমিকরা প্রতিদিনের মুজুরি কম পায়, তারপর ঈদের ৯দিন ছুটি। তিনি আরো বলেন, এবছরের মত কোনদিন ঈদে ৯দিন ছুটি ছিলনা। আমরা ঈদের দিনও কাজ করেছি। এবারে ঈদে ৯দিন ছুটি কারণে স্থলবন্দরে আমাদের সহ¯্রাধিক শ্রমিক তাদের পরিবার নিয়ে দুশ্চিন্তা রয়েছে। অপরদিকে সিএন্ডএফ এজেন্ট এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি হারুন অর রশিদ বলেন, মুসলমানদের সবচেয়ে ধর্মীয় বড় উৎসব ঈদ-উল ফিরত উপলক্ষে সরকারি নিয়মানুযায়ী এই বন্দরে ভারতীয় সকল পণ্য আমদানি-রপ্তানি আগামী ২৩ জুন থেকে ১ জুলাই বন্ধ থাকবে। বন্দরে ছুটির প্রসঙ্গে পবিত্র শব-ই কদরসহ মাঝে শুক্র-শনিবার হওয়ায় মোট ৯দিন ছুটি সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এই বন্দর সংশ্লিষ্ট সিএন্ডএফ এজেন্ট, আমদানিকারক, পামানা পোর্ট লিংক লিমিটেড ও কাস্টামস কর্তৃপক্ষের সমš^য়ে আলোচনা সাপেক্ষে ঈদ-উল ফিরত উৎসব উদযাপন উপলক্ষে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। আগামী ২ জুলাই যথাযথভাবে ভারতীয় পণ্য আমদানি-রপ্তানি শুরু হবে। এদিকে পানামা পোর্ট লিংক লিমিডেট এর সিনিয়র ম্যানেজার আবু হেনা মোস্তফা কালাম রিপন বলেন, পবিত্র ঈদ-উল ফিতর উপলক্ষে আগামী ২৩ জুন থেকে ১ জুলাই পর্যন্ত মোট ৯দিন বন্দরে ভারতীয় সকল পণ্য আমদানি-রপ্তানি বন্ধ থাকবে। যার ফলে বন্দরে সব ধরণের কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। বর্তমানে স্থলবন্দরে প্রতিদিন প্রায় সাড়ে ৩’শ পণ্যবোঝাই ভারতীয় ট্রাক প্রবেশ করত। এতে শ্রমিকদের পারিশ্রমিক কম হলেও তা পেত। কিন্তু ঈদের ৯দিন ছুটি হওয়ায় শ্রমিকরা বসে থাকবে। আর এই ছুটির কারণে শ্রমিকরা তাদের মুজুরি থেকে বঞ্চিত হবে। সুখ-দুঃখ যাই থাকুক, তারপর ঈদের আনন্দ করতে হবে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *